ইসলামপুর

করিম বনাম রব্বানী, কার পাশে কানাইয়া ? বাকযুদ্ধে সরগরম তৃণমূলের আভ্যন্তরীন কোন্দল

Join our WhatsApp group

ইসলামপুরে তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দল থামার কোনও লক্ষণ নেই। রাজ্যের মন্ত্রী গোলাম রব্বানীর বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন দলেরই বিধায়ক তথা প্রাক্তন মন্ত্রী করিম চৌধুরী। কার পাশে দাঁড়ালেন দলের জেলা সভাপতি কানাইয়ালাল ?

ADVERTISEMENT

Bengal Live ইসলামপুরঃ ইসলামপুর ব্লকের পোন্ডিতপোঁতা ২ গ্রাম পঞ্চায়েতের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগকে কেন্দ্র করে উত্তর দিনাজপুর জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে। মন্ত্রী গোলাম রব্বানীর বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ তুললেন ইসলামপুরের বিধায়ক করিম চৌধুরী। সন্ত্রাসের বাতাবরণ তৈরি করার চেষ্টা করছেন মন্ত্রী বলেও তোপ করিমের৷ তাঁর অনুমতি ছাড়া ইসলামপুরে মন্ত্রী ঢুকলে বিক্ষোভ দেখানোর হুঁশিয়ারি দেন করিম চৌধুরী৷ এদিকে মন্ত্রীর বিরুদ্ধে সমস্ত অভিযোগ নস্যাৎ করে তৃণমূল কংগ্রেস জেলা সভাপতি কানাইয়ালাল আগরওয়াল বলেন, কেউ যদি বিক্ষোভ দেখায় তাঁর বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। বিধানসভা নির্বাচনের কয়েকমাস আগে উত্তর দিনাজপুর জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের অন্দরের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বকে কেন্দ্র করে চাপা উত্তেজনা দলীয় নেতা কর্মীদের মধ্যে।

জানা গেছে, পোন্ডিতপোঁতা ২ গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধানের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগে সরব হন এলাকারই তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীদের একাংশ। এই নিয়েই এদিন সকাল থেকে দফায় দফায় উত্তেজনা দেখা দেয়। বোমাবাজির অভিযোগও উঠেছে৷ ঘটনায় জখম হয়েছেন কয়েকজন বলে খবর৷ পরিস্থিতি সামাল দিতে এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়৷ এদিকে দোষীদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ গ্রহণ করার আর্জি নিয়ে বিধায়ক করিম চৌধুরীর বাড়িতে ধর্ণায় বসেন দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরব হওয়া কয়েকজন দলীয় কর্মী।

বিধায়ক আবদুল করিম চৌধুরীর অভিযোগ, দলের মধ্যে কিছু নেতা রয়েছে যাঁরা অশান্তির বাতাবরণ তৈরি করে কামাই করছে। দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রশাসনকে সমস্ত কিছু জানানোর পরেও কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে না। জেলা শাসক থেকে ব্লক সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক প্রত্যেককে পঞ্চায়েত প্রধানের দুর্নীতির বিরুদ্ধে জানানো হয়েছে। কিন্তু প্রত্যেকেই চুপ। বড় নেতাদের কথা শুনে কেউ কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ করছে না। এদিকে দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় মন্ত্রী গোলাম রব্বানীর উস্কানিকে মারধর করা হয়েছে নূর আলম নামে একজনকে। মন্ত্রী গোলাম রব্বানী ইসলামপুরকে সন্ত্রাদবাদী এলাকায় পরিনত করতে চাইছে বলেও এদিন অভিযোগ করেন করিম চৌধুরী। তাঁর অনুমতি ছাড়া ইসলামপুরে মন্ত্রী প্রবেয়া করলে দলীয় কর্মীদের বিক্ষোভ দেখানোর নির্দেশও দেন বিধায়ক করিম চৌধুরী৷

এদিকে বিধায়কের সমস্ত অভিযোগকে ভিত্তিহীন দাবি করে মন্ত্রী বলেন, পন্ডিতপোঁতা ২ গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধানকে তিনি চেনেন না। যে আহত হয়েছেন তাঁকেও তিনি চেনেন না। মন্ত্রী বলেন, করিম সাহেব প্রবীণ নেতা। এই সব কথা বলার আগে আমাকে বিষয়টি সম্পর্কে জানানোর প্রয়োজন ছিল। মিডিয়ার সামনে এমন অভিযোগ না করে জেলা সভাপতি, রাজ্য সভাপতি অথবা মুখ্যমন্ত্রীর কাছে অভিযোগ জানানো উচিৎ ছিল। এইসব কাজ দল বিরোধী। এছাড়া রাজনৈতিক কোনও অনুষ্ঠানে যদি জেলা সভাপতি আমাকে ডাকেন তাহলেই আমি ইসলামপুরে যাই। এছাড়া প্রশাসনিক কোনও বৈঠক থাকলে ইসলামপুরে যাই। এছাড়া নিজের বিধানসভা এলাকাতেই দলের নানান কাজের সাথে যুক্ত থাকি বলে মন্তব্য করেন গোলাম রব্বনী।

পুরো ঘটনাটি নিয়ে উত্তর দিনাজপুর জেলা তৃণমূল সভাপতি কার্যত বিধায়ক করিম চৌধুরীর বিরুদ্ধেই ক্ষোভ উগরেছেন। তিনি বলেন, পন্ডিতপোঁতা ২ পঞ্চায়েতে কিছুদিন থেকেই সমস্যা চলছে। বিধায়ক মার্চ মাসের শেষ থেকে বাড়িতেই রয়েছেন৷ বিষয়গুলি সম্পর্কে কিছুই জানেন না। যে যেমন জানায় সেই মতন করে মন্তব্য করে দেন। মন্ত্রী গোলাম রব্বানী এমন কোনও কাজই করেন না, যাতে সংগঠনের ক্ষতি হয়৷ এদিকে বিধায়ক সংগঠন সম্পর্কে কিছুই বোঝেন না। বাড়িতে বসে থেকে কোনওদিনই সংগঠন তৈরি করা যায় না। এদিকে ইসলামপুরে অনুমতি ছাড়া প্রবেশ করলে দলীয় কর্মীদের বিক্ষোভ দেখানোর নির্দেশ দেন বিধায়ক করিম চৌধুরী। এই বিষয়ে জেলা সভাপতি কানাইয়ালাল আগরওয়াল বলেন, কেউ বিক্ষোভ দেখালে শাস্তিমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

Related News

Leave a Reply

Back to top button