ইসলামপুর

গোয়ালপোখরে রাহুল গান্ধী, কড়া আক্রমণ বিজেপি-তৃণমূলকে

গোয়ালপোখরে রাহুল গান্ধীর সভা থেকে ফের একবার “চৌকিদার চোর হে” শ্লোগান উঠল। সংযুক্ত মোর্চার প্রার্থীদের সমর্থনে প্রায় আধা ঘন্টা বক্তব্য রাখলেন রাহুল গান্ধী।

 

Bengal Live গোয়ালপোখরঃ কেরলে নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে বামেদের নিশানা করলেও পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনী প্রচারে এসে তৃণমূল কংগ্রেস ও বিজেপিকেই আক্রমণ শানালেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। গোয়ালপোখরের সভা থেকে তাঁর সাফ বক্তব্য বিজেপি হিংসার মাধ্যমে বাংলা ভাগের চেষ্টা করছে। বুধবার উত্তর দিনাজপুর জেলার গোয়ালপোখরে সংযুক্ত মোর্চার প্রার্থীদের সমর্থনে প্রচারে আসেন কংগ্রেসের শীর্ষ নেতা রাহুল গান্ধী। বাগডোগরা বিমান বন্দরে নেমে হেলিকপ্টারে লোধন হাইস্কুল মাঠে পৌঁছান তিনি। প্রায় আধা ঘন্টা বক্তব্য রাখেন সেখানে। পুরো সময়টাই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, অমিত শাহ ও তৃণমূল কংগ্রেসকে টার্গেট করেন তিনি।

এদিন বক্তব্য রাখতে গিয়ে প্রথমেই নোট বন্দির প্রসঙ্গ টেনে আনেন রাহুল। তিনি বলেন, আমাদের ভাষা, ইতিহাসে আক্রমণ করছে বিজেপি। আসাম, তামিলনাড়ু সব জায়গাতেই হিংসা ছড়াচ্ছে বিজেপি। বাঙালীদের বন্ধুত্ব নষ্ট করার চেষ্টা করছে। এর পরিনাম খুব খারাপ হবে। নরেন্দ্র মোদী, অমিত শাহ ওঁদের কিছু হবে না। যা ক্ষতি হওয়ার সাধারণ মানুষের হবে। আগুন লাগলে জ্বলবে সাধারণ নাগরিকরা। বাংলা ভাগ হলে আগুন লাগবেই। আমরা এখানে শুধু নির্বাচনে লড়াই করছি না, আমরা বাংলার ইতিহাস, ঐতিহ্য রক্ষা করতে চাইছি।

তিনি আরও বলেন, কেউ কাজ পাচ্ছে না। না মোদীজি দিচ্ছে, না মমতা ব্যানার্জী দিচ্ছে। কাটমানি ছাড়া কোনও কাজ হয় না এখানে। প্রথমে টাকা দাও তারপর কাজ নাও, এই ঘটনা শুধু মাত্র এই রাজ্যেই হয়। ওঁরা বলছে ‘খেলা হবে’, কিন্তু আমার প্রশ্ন এখানকার কলেজ, বিশ্ববিদ্যায়ল, রাস্তা কে বানাবে? এখানে নাটক চলছে। করোনা এসেছে মোদীজি বলছেন থালা বাজাও, ঘন্টা বাজাও, মোবাইলের লাইট জ্বালাও। রাহুল গান্ধীর প্রশ্ন? এইসব করে কী করোনা চলে গেছে?
পরিযায়ী শ্রমিকদের প্রসঙ্গ টেনে রাহুল গান্ধী বলেন, শ্রমিকদের বাড়ি ফেরানোর জন্য যখন মোদিজী কোনও উদ্যোগ নেয়নি, তখন তিনি তাঁর কিছু কাছের ব্যবসায়ীদের ট্যাক্স মকুব করেছেন। এদিন সভা মঞ্চে বক্তব্য রাখতে গিয়ে রাহুল গান্ধী কৃষক আইন নিয়েও মন্তব্য করেন।

এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করে রাহুল গান্ধী বলেন, তিনি কী করেছেন? রাস্তা, কলেজ বানিয়েছে? মানুষকে কাজ দিয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়? কংগ্রেসের ইতিহাসে বিজেপির সাথে সমঝোতা করার কোনও ঘটনা নেই। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপির সাথে সমঝোতা করেছেন। আমাদের লড়াই, বিজেপি, আরএসএসের সাথে। আমরা ওঁদের সাথে কখনও সমঝোতা করবো না। আর সেই কারণেই মোদীজি কংগ্রেস মুক্ত ভারত গড়ার ডাক দিয়েছিল। তৃণমূল কংগ্রেস মুক্ত ভারত গড়ার ডাক দেয়নি। তাই বিজেপিকে রুখতে সংযুক্ত মোর্চার প্রার্থীদের নির্বাচিত করুন।

Related News

Leave a Reply

Back to top button