ইসলামপুর

চোপড়া কাণ্ডে পদক্ষেপ পুলিশের, গ্রেপ্তার মৃতের পরিবারের তিন সদস্য

চোপড়ার সোনাপুরে প্রথম দিন উদ্ধার মৃত কিশোরীর দেহ। পরের দিন একই জায়গায় উদ্ধার মৃত কিশোরীর সহপাঠী এক কিশোরের দেহ। থানায় অভিযোগ দায়ের হয় দুই পরিবারের পক্ষ থেকেই। পুলিশ এক পক্ষের অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেপ্তার করল অপর পক্ষের তিন অভিযুক্তকে। ব্যাকফুটে বিজেপি ?

Bengal Live ইসলামপুরঃ চোপড়ায় একদিকে কিশোর খুনের অভিযোগ। অপর দিকে কিশোরী খুনের অভিযোগ। দুই পরিবারই পরস্পরের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ জানিয়ে চোপড়া থানায় এফআইআর দায়ের করে। কিশোরীর মৃত্যুর প্রতিবাদে রাস্তায় নেমে তীব্র আন্দোলন শুরু করে বিজেপি। অভিযুক্ত এক কিশোর সহ ওই কিশোরীর মৃত্যুর ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তারের দাবিতে পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখানোর সময় উত্তাল হয়ে ওঠে চোপড়া। একাধিক সরকারি বাস ও পুলিশের গাড়িতে আগুন লাগিয়ে জ্বালিয়ে দেয় উত্তেজিত জনতা। এই ঘটনার ঠিক পরের দিন সকালে, যেখানে কিশোরীর দেহ মিলেছিল, সেখানেই পাওয়া যায় অভিযুক্ত কিশোরের দেহ। এর পরই ঘটনায় নতুন মাত্রা যোগ হয়।

ADVERTISEMENT

মৃত কিশোরের পরিবারের তরফে খুনের অভিযোগ দায়ের করা হয় ওই কিশোরীর পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই সোমবার রাতে গ্রেপ্তার করা হয় মৃত কিশোরীর বাবা ও দুই দাদাকে। ধৃত তিনজনকে মঙ্গলবার চোপড়া থানার পুলিশ ইসলামপুর মহকুমা আদালতে পেশ করেছে৷ ইসলামপুর পুলিশ সুপার শচীন মক্কার বলেন, অভিযোগের ভিত্তিতে ওই কিশোরীর বাবা ও দুই দাদাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ধৃতদের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ রুজু করা হয়েছে৷

অন্যদিকে, ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করে খুন করা হয়েছে বলে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হলেও মৃত কিশোরীর দেহের ময়নাতদন্তের পর পুলিশ জানিয়ে দেয়, ময়নাতদন্তের রিপোর্ট অনুযায়ী বিষক্রিয়ার জেরে মৃত্যু হয়েছে ওই কিশোরীর। মৃতার শরীরে যৌন হেনস্থার কোনও চিহ্ন পাওয়া যায়নি।

Related News

Leave a Reply

Back to top button