পোর্টজিন

উত্তর – অনিন্দিতা ব্যানার্জ্জী

Bengal Live পোর্টজিনঃ পোর্টজিন কি? পোর্টজিন একটি অনলাইন ম্যাগাজিন। প্রতি সপ্তাহের রবিবার এটি বেঙ্গল লাইভের (bengallive.in) এর পোর্টজিন বিভাগ থেকে প্রকাশিত হয়।

bengal live portzine anindita

 

চৈত্রমাস। বসন্তের আবেশ চরিদিকে। তার ওপর দোলপূর্ণিমা। ঠিক প্রত্যেক বছরের মতই অরূপ দৌড়ে গেল অতসী নদীর ধারে, সেই বটগাছটার নীচেই আবার বসলো। আপনমনে ভাবতে ভাবতে মাটির উপর আঙ্গুল দিয়ে আঁকিবুকি কাটতে শুরু করল। সম্বিত ফিরতেই দেখল সে ঘোরের মধ্যে কেকার নামটাই লিখেছে। চোখের কোণে জল চলে এল অরুপের। তার মনে পরে গেল আজকের দিনেই ঠিক আট বছর আগে কেকার সাথে প্রথম দেখা হয়েছিল তার। বিকেল বেলা ঠিক এই নদীর ধারেই দেখা করতে বলেছিল তাকে। শুনে লজ্জাই মুখ রাঙা হয়ে উঠেছিল কেকার। আর যাইহোক, গ্রামবাংলার মেয়ে কথায় কথায় লজ্জা পাওয়াটা ওদের স্বভাবের মধ্যেই পরে। কথামতো কেকাও সেজেগুজে চলে এসেছিল ঠিক জায়গায়, আর অরূপ লাল অবিরের থালা হাতে অপেক্ষা করছিল তার জন্য। তাকে দেখে আস্তে আস্তে এগিয়ে গেল। লাল অবিরে মাখা হাত দুটো কেকার গালে ছুঁয়ে দিতে যাবে অমনি হঠাৎ ফোনটা বেজে উঠলো। অরূপ বললো, জরুরী তলব, এক্ষুনি একবার সদরে যেতে হবে। একজন রোগী মরণাপন্ন অবস্থা। একথা বলেই অরূপ ওখান থেকে গাড়ি নিয়ে বেরিয়ে গেল। গন্তব্যে পৌঁছাতেই সহকারি জুনিয়র ডাক্তার গাড়ির দরজা খুলতে খুলতে বললো, সরি স্যার পেশেন্টকে বাঁচাতে পারলাম না। অ্যাক্সিডেন্ট কেস। প্রচন্ড ব্লিডিং হচ্ছিল। আমরা অনেক চেষ্টা করেছিলাম আপনি আসা অবধি কোনোরকমে রাখার। কিন্তু পারলাম না স্যার। ইটস ওকে, আমাকে একবার ডেড-বডির কাছে নিয়ে চলো। রুমে ঢুকিয়েই বাকিরা বেরিয়ে এল। অরূপ ধীরে ধীরে ডেড-বডির কাছে গিয়ে মুখের চাদর সরাতেই আঁতকে উঠলো। আর মাথা কাজ করছে না অরুপের। এ কী দেখছে সে চোখের সামনে!!! মৃত রোগীটি আর কেউ নয়, সে কেকা ! অরূপ যেন নিজের চোখকে বিশ্বাসই করতে পারছে না৷ এই কিছুক্ষণ আগেই সে যার সাথে দেখা করতে গেছিল এই সেই মৃত কেকা!! চোখে অন্ধকার দেখছে অরূপ। তার মাথা ঘুরছে । এতো কিছু ভাবতে ভাবতে কখন যে তার চোখ লেগে গেছিলো সে বুঝতে পারেনি। হঠাৎ চোখ খুলতেই দেখল, সেই গাছের তলায় বসে আট বছর আগের ঘটে যাওয়া ঘটনার স্মৃতিচারণ করছিল সে । প্রত্যেক বছর আজকের দিনে সে এখানেই চলে আসে, আর পাগলের মতন কেকাকে খোঁজে, আর খোঁজে তার উত্তর। সেদিন যেটা সে হসপিটালে দেখেছিল সেটা সত্যি নাকি যে অতীতকে এখানে ফেলে রেখে গিয়েছিল সেটা সত্যি …..?

কীভাবে লেখা পাঠাবেন?
নীচে উল্লিখিত হোয়াটসঅ্যাপ নাম্বার কিংবা ইমেল আইডিতে লেখা পাঠাতে পারবেন।
হোয়াটসঅ্যাপ নাম্বার~ 9635459953
ইমেল আইডি~ bengalliveportzine@gmail.com
লেখার সঙ্গে নিজের নাম, ঠিকানা, মোবাইল নম্বর এবং একটি ছবি পাঠানো আবশ্যক।
ভ্রমণ কাহিনীর সঙ্গে নিজের তোলা দুটো ছবি পাঠাতে হবে।

Related News

Leave a Reply

Back to top button