রায়গঞ্জ

বাবার অত্যাচারের ভয়ে আত্মঘাতী হল এক স্কুলছাত্রী

বাবার অত্যাচারের ভয়ে আত্মঘাতী হল এক স্কুলছাত্রী। নাতনির মৃত্যুর জন্য ছেলেকেই দায়ী করেছেন মৃতার ঠাকুরদা।

Bengal Live রায়গঞ্জঃ বাবার অত্যাচারের ভয়ে আত্মঘাতী এক স্কুলছাত্রী। মঙ্গলবার রাতে নিজের শোবার ঘরে গলায় ওড়নার ফাঁস লাগানো অবস্থায় উদ্ধার করা হয় তাকে। ঘটনাটি ঘটেছে রায়গঞ্জের রূপাহারের পশ্চিম মহাদেবপুর গ্রামে। মৃতার বাবার বিরুদ্ধে রায়গঞ্জ থানায় দায়ের করা হয়েছে অভিযোগ।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, মৃতার নাম রাখী শর্মা (১৩)। বাড়ি রায়গঞ্জের বীরঘই গ্রাম পঞ্চায়েতের পশ্চিম মহাদেবপুর এলাকায়। রায়গঞ্জ ব্লকের মাড়াইকুড়া ইন্দ্রমোহন উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী ছিল ওই নাবালিকা। এদিন রাতে বাড়িতে শোবার ঘরে তাকে গলায় ওড়নার ফাঁস লাগানো অবস্থায় ঝুলতে দেখে পরিবারের লোকেরা। এরপর তাকে উদ্ধার করে রায়গঞ্জ সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকেরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

১৫ অগাস্ট ১০ পুলিশ আধিকারিককে সম্মান জানাবেন মুখ্যমন্ত্রী, কারা রয়েছেন তালিকায়?

মৃতার দাদু ধিরেন শর্মার অভিযোগ, তাঁর ছেলে অচিন্ত্য শর্মা প্রায়ই মদ্যপ অবস্থায় বাড়িতে ফিরে মেয়ে, বাবা, মা, স্ত্রী কে টাকার দাবিতে বেধরক মারধোর করত। অচিন্ত্য তাঁর মেয়ে রাখীকেও লাঠি, জুতো দিয়ে মারধর করত মাঝেমধ্যেই। তবে কিছুদিন যাবৎ সেই অত্যাচার চরমে উঠলে বাবার ভয়ে যথেষ্ট আতঙ্কে থাকতো রাখী। মঙ্গলবারও বিকেলের পর বাড়িতে এসেই অচিন্ত্য মেয়েকে মারধর করে এবং এরপরই বাড়ি থেকে আচমকা উধাও হয়ে যায় রাখী। পরিবারের লোকেরা অনেক খোঁজাখুঁজির পর তাকে নিজের শোবার ঘরেই ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান। কোনরকমে তাকে উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয় রায়গঞ্জ সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে। সেখানে তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন জরুরী বিভাগের চিকিৎসকেরা।

ছকে বাঁধা জীবনে বানিয়ে ফেলুন যোগ ব্যায়ামের রুটিন। জেনে নিন কোনটা কখন করবেন আর কোনটা করবেন না

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় রায়গঞ্জ থানার পুলিশ। জানা গিয়েছে, অভিযুক্ত অচিন্ত্য শর্মার বিরুদ্ধে পুলিশে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন মৃতার ঠাকুরদা ধিরেন শর্মা নিজেই। নাতনির মৃত্যুর জন্য তার ছেলেকেই দায়ী করে ছেলের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়েছেন তিনি। ময়না তদন্তের জন্য মৃতদেহটি রায়গঞ্জ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে রায়গঞ্জ থানার পুলিশ।

Related News

Leave a Reply

Back to top button