রায়গঞ্জ

হেমতাবাদের ভোট বয়কটকারী গ্রামবাসীদের মারধর করার অভিযোগ কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে

নির্বাচন ঘোষণা হওয়ার পরই ভোট বয়কটের দাবিতে সরব হয়েছিলেন গ্রামবাসীরা। সেতু নির্মাণ না হওয়া পর্যন্ত কোনও ভোট দেবেন বা গ্রামবাসীরা এমনটাই জানিয়েছিলেন তাঁরা। এদিনও সেই দাবিতেই অনড় ছিলেন গ্রামবাসীরা।

 

Bengal Live রায়গঞ্জঃ ভোট বয়কটকারী গ্রামবাসীদের মারধর করার অভিযোগ উঠল কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে। ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্য হেমতাবাদ বিধানসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত শেরপুর গ্রামে। বাড়ীতে ঢুকে মারধর করার অভিযোগও উঠেছে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের বিরুদ্ধে।

“নো ব্রীজ নো ভোট” এই দাবিকে সামনে রেখে ভোট বয়কটের দাবিতে সরব হয়েছেন শেরপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের শতাধিক বাসিন্দা। এদিন ভোট গ্রহণ শুরু পর থেকেই গ্রামের কোনও বাসিন্দা বুথমুখী হন নি৷ ফাঁকাই ছিল ভোট গ্রহণ কেন্দ্র। এরই মাঝে ভোটারদের মারধর করার অভিযোগ উঠল কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে।

বুথের কাছেই ভীড়, রায়গঞ্জে কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে লাঠিচার্জের অভিযোগ

গ্রামবাসীদের মধ্যে অন্যতম ঝুমা রায় বলেন, আমরা বাড়ীতেই বসে ছিলাম। সেই সময় কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা বাড়ীতে এসে জিজ্ঞেস করে ভোট দেবেন না? আমরা না বলতেই মারধর শুরু করে।

একই অভিযোগ করছেন প্রসেনজিৎ বিশ্বাস নামে অপর এক গ্রামবাসী। তাঁর দাবি, একসাথে কয়েকজন গল্প করছিলেন সেই সময় পেছন থেকে লাঠি দিয়ে মারধর শুরু করে বাহিনী। বিজেপির উস্কানি রয়েছে বলেও অভিযোগ করেন প্রসেনজিৎ বিশ্বাস।

Related News

Leave a Reply

Back to top button