রায়গঞ্জ

পোস্টার ঘিরে জল্পনা রায়গঞ্জে, মুখ্যমন্ত্রী, পুরপতির প্রশংসা বহিষ্কৃত তৃণমূল কাউন্সিলরের মুখে

মুখ্যমন্ত্রী ও রায়গঞ্জ পুরসভার পুরপতির ভূয়সী প্রশংসা করলেন বহিষ্কৃত তৃণমূল কংগ্রেস কাউন্সিলর। দাদার অনুগামীদের দলে নেওয়া চলবে না”লেখা পোস্টার পড়ল রায়গঞ্জ পুরসভার ২৫ নম্বর ওয়ার্ডে।

 

Bengal Live রায়গঞ্জঃ “দাদার অনুগামীদের দলে নেওয়া চলবে না”লেখা পোস্টার পড়ল রায়গঞ্জ পুরসভার ২৫ নম্বর ওয়ার্ডে। রাতের অন্ধকারে কে বা কারা নাম ঠিকানাহীন পোস্টার সাঁটিয়েছে তা জানা না গেলেও বহিষ্কৃত তৃণমূল কাউন্সিলর অসীম অধিকারীকেই যে উদ্দেশ্য করে এই পোস্টার গুলো লাগানো হয়েছে তা নিয়ে একপ্রকার নিশ্চিত বাসিন্দারা। বৃহস্পতিবার সকাল হতেই এই পোস্টার নজরে আসে বাসিন্দাদের, আর তারপর থেকেই শুরু হয়েছে জল্পনা। এদিকে শুভেন্দু অধিকারী ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত কাউন্সিলর অসীম অধিকারীর মুখে শোনা গিয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও রায়গঞ্জ পুরসভার প্রশংসা৷ তবে কী মুকুল রায়ের পথেই এগোতে চাইছে অসীম অধিকারী? এখন এই প্রশ্নই উঠছে বিভিন্ন মহলে।

চুরি করে পালাতে গিয়ে হাতেনাতে পাকরাও দুষ্কৃতী

” রায়গঞ্জ বিধানসভা আসনে হারের কান্ডারী বহিস্কৃত কাউন্সিলর, দাদার অনুগামীদের দলে নেওয়া চলছেনা চলবে না ” এই পোস্টারে ছয়লাপ রায়গঞ্জ পুরসভার ২৫ নম্বর ওয়ার্ড। আর এই পোস্টারকে ঘিরেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে রায়গঞ্জ শহরে। ২৫ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর অসীম অধিকারীকে দলবিরোধী কার্যকলাপের কারনে বিধানসভা নির্বাচনের আগেই দল থেকে বহিষ্কার করেছিল উত্তর দিনাজপুর জেলা তৃণমূল কংগ্রেস কমিটি। এরপর বহিষ্কৃত ওই তৃণমূল কাউন্সিলর তথা শুভেন্দু অধিকারীর ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত অসীম অধিকারী যোগ দেন বিজেপিতে।

বিধানসভা নির্বাচনে পরাজয়ের পর তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া বহু নেতা কর্মী আবারও পুরোনো দলে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছেন। ইতিমধ্যেই বিজেপি ত্যাগ করে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন মুকুল রায়। তবে কী এবার অসীম অধিকারীও ফের তৃণমূলে ফেরার চেষ্টা শুরু করেছেন? বৃহস্পতিবার ওয়ার্ড জুড়ে পোস্টার নজরে আসতেই উঠে এসেছে এই প্রসঙ্গ।

নদীতে স্নান করতে নেমে তলিয়ে গেল দুই যুবক, শোকের ছায়া ইসলামপুরে

এই বিষয়ে কাউন্সিলর অসীম অধিকারী বলেন, রাতের অন্ধকারে কে বা কারা এই পোস্টার লাগিয়েছে তা আমার জানা নাই। আমি চার বছর মা মাটি মানুষের সৈনিক হিসেবে কাজ করেছি৷ কোনও কারণে দলের সাথে আমার ভুল বোঝাবুঝি হয়েছিল। তাই দল আমাকে বহিষ্কার করেছে। যতদিন কাজ করেছি নিষ্ঠার সাথে কাজ করেছি। ওয়ার্ডের কেউ দুর্নীতির কোনও অভিযোগ তুলতে পারবে না৷  মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে এলাকার মানুষের সার্বিক উন্নয়নের জন্য দিনরাত কাজ করি। কিছু ব্যক্তিগত শত্রু রয়েছে তারাই এই কাজগুলি করে চলেছে। রায়গঞ্জ পুরসভা একটা পরিবার। পুর বোর্ড অনেক উন্নয়ন করেছে। পুরপতি, মুখ্যমন্ত্রী সবার কাছে আমি কৃতজ্ঞ।

রায়গঞ্জ পুরসভার পুরপতি সন্দীপ বিশ্বাস জানিয়েছেন, গণতন্ত্রে যে কেউ  করে পোস্টার লাগাতেই পারেন। তবে ২৫ নম্বর ওয়ার্ডের বহিষ্কৃত তৃণমূল কাউন্সিলর অসীম অধিকারীকে দল ফিরিয়ে নেবে কিনা তা ঠিক করবেন দলের শীর্ষ নেতৃত্ব।

পূর্ণ বয়স্ক হাতির রহস্যমৃত্যু

এদিকে পোস্টার প্রসঙ্গে কোনও মতামত ব্যক্ত না করলেও ২৫ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর যে বিজেপি দলেই আছেন তা স্পষ্ট করে দেন বিজেপির উত্তর দিনাজপুর জেলা সভাপতি বাসুদেব সরকার।

Related News

Leave a Reply

Back to top button