রায়গঞ্জ

ডিসেম্বরের পর থেকে উলটো মার শুরু, রায়গঞ্জে এসে হুঙ্কার দিলীপ ঘোষের

ডিসেম্বরের সকাল। রায়গঞ্জ শহরে চায়ের আড্ডায় বসলেন একঝাঁক রাজনৈতিক নেতা। মধ্যমণি বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। দিলীপের সংলাপে চায়ের উষ্ণতা আর রাজনীতির উত্তাপ মিলেমিশে একাকার।

 

Bengal Live রায়গঞ্জঃ তৃণমূলের দুই সাংসদকে পাগলা ও ভারি বলে কটাক্ষ৷ ডিসেম্বরের পর থেকে উলটো মার শুরু হবে বলে হুঁশিয়ারি। রবিবার সকালে রায়গঞ্জে চা চক্রে যোগ দিতে এসে এমনই সব মন্তব্য করলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। নাম না করে এদিন তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ ব্যানার্জী ও সৌগত রায়কে কটাক্ষ করেন দিলীপ ঘোষ।

রবিবার সকালে রায়গঞ্জের মোহনবাটি বাজার এলাকায় চা চক্রে যোগ দেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তাঁর সাথে চা চক্রে যোগ দেন বালুরঘাটের বিজেপি সাংসদ সুকান্ত মজুমদার, বিজেপির রাজ্য সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু। উপস্থিত ছিলেন উত্তর দিনাজপুর জেলা ও রাজ্যের একাধিক নেতৃত্ব।

চা চক্রে বক্তব্য রাখার সময় একাধিক বিতর্কিত মন্তব্য করতে শোনা যায় দিলীপ ঘোষকে। চা চক্রের শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েও তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্বকে নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করেন দিলীপ। বিজেপির রাজ্য সভাপতি বলেন,পাথর হয়ে গিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ক্ষমতা ধরে রাখার জন্য ক্ষমতার দাস হয়েছেন দিদি। ক্ষমতাকে অপব্যবহার করে ভাই, ভাইপোদের ঘর বাড়ি বানানো হচ্ছে। বাংলার মানুষ বারবার পরিবর্তন করেছে। বাম কংগ্রেসকে পরিবর্তন করেছে। আর তৃণমূল কংগ্রেস তো বাম- কংগ্রেসের বাই প্রোডাক্ট। আগাছা পার্টি। নীতি আদর্শ কিছুই নেই। চুটকি দিয়ে আমরা তাড়িয়ে দেবো বাংলা থেকে। তৃণমূল আইন কানুনের উপরে।

ইরাক, সিরিয়া, আফগানিস্তানের উপরে উঠে গেছে বাংলা। ভারতবর্ষের লোক চিন্তা করছে পশ্চিমবঙ্গের ভেঙে পড়া আইন শৃঙ্খলা নিয়ে। বাংলার মানুষ বুঝতে পেরেছে খাল কেটে কুমির নিয়ে এসেছেন তাঁরা। এই সরকারের বিদায় আসন্ন। বাংলার উন্নয়ন শুধু তৃণমূলের বাড়িতে হয়েছে। আর কোথাও হয়নি। পুলিশকে ঢোড়া সাপ বানিয়ে রাখা হয়েছে। তৃণমূলের ডেথ সার্টিফিকেট লেখা হয়ে গেছে। ক্ষমতায় থাকার পরেও প্রতিদিন তৃণমূলের এক একজন নেতা ক্ষোভ প্রকাশ করছেন।

এদিন তৃণমূলের দুই সাংসদ কল্যাণ ব্যানার্জী ও সৌগত রায়কে কটাক্ষ করে দিলীপ ঘোষ বলেন, সৌগত বাবু মাস্টারমশাই লোক। অত রাজনীতি বোঝেন না, তাঁকে সামনে খারা করে ল্যাজেগোবরে অবস্থা। আর একজন আধ পাগল আছেন, সে বলে উকিল। পাগল ছাগল নিয়ে পার্টি চলে নাকি ? জাহাজ ডুববে সৌগত বাবুও বুঝতে পেরেছেন।

এদিন সাংবাদিক বৈঠকে দিলীপ ঘোষ বলেন, পুলিশ নপুংসক হয়ে দাঁড়িয়ে আছে।  ডিসেম্বরের পর থেকে উলটা মার হবে।

Related News

Leave a Reply

Back to top button