রায়গঞ্জ

ফাঁকা ভোট গ্রহণ কেন্দ্র, একজোট হয়ে ভোট বয়কটের দাবিতে অনড় বাসিন্দারা

ফাঁকা ভোট গ্রহণ কেন্দ্র, একজোট হয়ে ভোট বয়কটের দাবিতে অনড় বাসিন্দারা। ব্রীজ না হওয়ায় প্রতিবাদে ভোট দিলেননা শেরপুরের ভোটাররা।

Bengal Live হেমতাবাদঃ বুথমুখী হলেননা হেমতাবাদ বিধানসভার অন্তর্গত শেরপুর গ্রামপঞ্চায়েতের শতাধিক ভোটার। নির্বাচনের ঠিক আগেই এলাকায় সেতুর দাবীতে ভোট বয়কটের ডাক দিয়েছিলেন গ্ৰামবাসীরা। সেই মতোই বেশ কিছুটা সময় অতিক্রান্ত হলেও এখনও পর্যন্ত ভোটদান করেননি কেও।

আজ উত্তর দিনাজপুরের হেমতাবাদ বিধানসভা কেন্দ্রের ভোট। তবে ভোট দানের বেশ কিছুটা সময় পার হয়ে গেলেও বুথ মুখী হলেননা হেমতাবাদ বিধানসভার শেরপুরের বাসিন্দারা। নির্বাচনের আগ মুহুর্তেই “নো ব্রিজ, নো ভোট” স্লোগান তুলে ভোট বয়কটের ডাক দিয়েছিলেন গ্ৰামবাসীরা। সেই কথা মতোই এদিন এখনও পর্যন্ত ভোট দান থেকে বিরত থাকলেন শতাধিক গ্ৰামবাসী। গ্ৰামবাসীদের দাবী, যতোদিন খলসী ঘাটের ব্রিজ না হবে ততোদিন ভোট দেবেন না তারা।

এলাকার বাসিন্দা নরেশ চন্দ্র রায় বলেন, ভোট আসে ভোট যায়। আগামীতে হবে বলেও ব্রিজের কাজ হয়নি। তাই আমরা এক হয়ে ভোট বয়কট করবো। যতদিন দাবী পূরণ না হবে বিধানসভা, লোকসভা কোনো ভোটই দেবেননা তারা। কোনো রাজনৈতিক দল তাদের কাছে আসেনি এবং তারা কারোর কথা শুনবেন না বলেই জানিয়েছেন তারা।

গ্ৰামবাসীদের সূত্রে খবর, আপাতত গ্ৰামবাসীদের কোনো ভোট পরেনি বলেই জানা গিয়েছে। প্রশাসন সহ কোনো রাজনৈতিক দল গ্ৰামবাসীদের কাছে আসেননি। খলসী ঘাট ব্রিজের দাবী পূরণ না হলে ভোট দান থেকে বিরত থাকবেন বলেই জানান গ্ৰামবাসীরা। ফলে হেমতাবাদ বিধানসভার শেরপুর গ্ৰাম পঞ্চায়েতের ১২৯ নম্বর বুথের ভোট কর্মী ও কেন্দ্রীয় বাহিনীর ফাকাই বসে রয়েছেন। দেখা পাওয়া যায়নি ভোটারদের।

Related News

Leave a Reply

Back to top button