রায়গঞ্জ

উদ্ভিদ,ছত্রাকের বৈচিত্র্য জানতে কুলিকে সমীক্ষা,মিলছে নানান অজানা তথ্য

সমীক্ষা শুরু হতেই নানান রকমের উদ্ভিদ ও ছত্রাকের সন্ধান মিলছে কুলিকের জঙ্গলে৷ প্রতিবছর পাখি গণনা হলেও এই প্রথম উদ্ভিদ, ছত্রাক ও লাইকেনের বৈচিত্র্য খুঁজতে সমীক্ষা কুলিক বনাঞ্চলে।

Bengal Live রায়গঞ্জঃ কুলিক বনাঞ্চলের উদ্ভিদ, ছত্রাক ও লাইকেনের বৈচিত্র্য জানতে শুরু হল সমীক্ষা। বন দপ্তরের উদ্যোগে এই সমীক্ষা শুরু হতেই একাধিক বিরল প্রজাতির উদ্ভিদ, ছত্রাকের খোঁজ মিলতে শুরু করেছে। এই সমীক্ষার মাধ্যমে কুলিকের উদ্ভিদ বৈচিত্র্যের পাশাপাশি গ্রোয়িং স্টক,কেনোপি ঘনত্ব, ছত্রাক বৈচিত্র্য, আগাছা, পরাশ্রয়ী উদ্ভিদ, জীবজন্তুর ক্যারিং ক্যাপাসিটি ইত্যাদি জানা সম্ভব হবে বলে জানিয়েছেন দুই সমীক্ষক।

প্র‍তি বছর নিয়ম করে পরিযায়ী এশিয়ান ওপেন বিল স্টর্ক পাখির মেলা বসে উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ শহরের কুলিক পক্ষীনিবাস ও বনাঞ্চলে৷ পরিযায়ী পাখির সংখ্যা জানতে পাখি গণনার আয়োজন হয় নিয়ম করে। একই সাথে জঙ্গলে গাছের সংখ্যার হিসেবও করা হয়৷ তবে উদ্ভিদ, ছত্রাক ও লাইকেনের কত বৈচিত্র্য এই জঙ্গলে রয়েছে তা জানতে এখনও কোনও সমীক্ষার আয়োজন করা হয় নি। এবার সেই সব অজানা তথ্য জানতেই কুলিকে শুরু হয়েছে সমীক্ষা। বন বিভাগের আধিকারিকদের তত্ত্বাবধানে এই সমীক্ষা শুরু করেছেন রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরিকালচার বিষয়ের অধ্যাপক তথা ট্যাক্সনমি বিশেষজ্ঞ ডঃ তন্ময় চৌধুরী ও বোটানি বিষয়ের শিক্ষক ডঃ উতংক দে।

ডঃ তন্ময় চৌধুরী বলেন, ৬ জুন থেকে এই সমীক্ষা আমরা শুরু করেছি৷ বর্ষার আগে ও পরে এবং বসন্ত কালে এই সমীক্ষা চালানো হবে কুলিক বনাঞ্চল জুড়ে। সমীক্ষা শুরু হতেই মাত্র তিনদিনের মধ্যে উদ্ভিদের নানান বৈচিত্র্য সামনে উঠে এসেছে৷ বেশ কিছু বিরল উদ্ভিদের সন্ধানও মিলছে। তন্ময় বাবু জানান, কচু প্রজাতির ‘টাইফোনিয়াম ফ্ল্যাজেলিফরমি’ ও ‘অ্যামোরফো ফ্যালাস মারগারিটিফার’ নামক দুই উদ্ভিদের সন্ধান মিলেছে। উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুরে এই উদ্ভিদের ডকুমেন্টসন আগে কোথাও পাওয়া যায়নি। এছাড়া কুমড়ো প্রজাতির ‘লুপফা অপারকিউলটা’ উদ্ভিদের সন্ধান মিলেছে এই জঙ্গল থেকে৷ সমীক্ষা যতই এগিয়ে যাবে ততই নানান প্রজাতির আরও উদ্ভিদের সন্ধান মিলবে বলে আশা প্রকাশ করেন তন্ময় বাবু।

এদিকে ডঃ উতংক দে জানান, উদ্ভিদের পাশাপাশি ছত্রাক ও লাইকেন অর্থাৎ মিথোজীবীদের নিয়ে সমীক্ষা চলছে একই সাথে। এখনও পর্যন্ত উল্লেখযোগ্য ‘কপ্রাইনাস’, মানুষের কানের আকৃতির ন্যায় (ডেড ম্যানস ইয়ার) অরিকুলারিয়া, পলিপোরাস, ব্র‍্যাকেট ফাঙ্গাস, পিজাইজা, গ্যানোডার্মা প্রজাতির ছত্রাকের সন্ধান মিলেছে। এদিকে বিষাক্ত প্রজাতির ছত্রাক ‘আমেনিটা’-র সন্ধানও মিলেছে বলে জানিয়েছেন উতংক দেব।

কুলিকের বনাঞ্চলের বিট অফিসার বরুন কুমার সাহা বলেন, কুলিকের উদ্ভিদ, ছত্রাককুলের সম্পর্কে সঠিক ধারণা পেতেই এই সমীক্ষার আয়োজন করা হয়েছে। সমীক্ষা শেষের পর সম্যক একটি ধারণা তৈরি হবে এই জঙ্গল নিয়ে। পরবর্তীকালে নানান রকমের পরিকল্পনা করতে এই সমীক্ষার রিপোর্ট সাহায্য করবে।

Related News

Leave a Reply

Back to top button