রায়গঞ্জ

রাজ্য সভাপতির উপস্থিতিতেই বিজেপির গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব প্রকাশ্য উত্তর দিনাজপুরে

Join our WhatsApp group

রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের উপস্থিতিতে রায়গঞ্জে আয়োজিত বিজেপির সাংগঠনিক সভায় ডাক ছিল না দলেরই দুই প্রাক্তন জেলা সভাপতির। দীর্ঘক্ষণ সভাকক্ষের বাইরেই ঘুরে বেড়ালেন দুই নেতা। গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব নিয়ে সভার শেষে জবাব দিলেন দিলীপ ঘোষ।

ADVERTISEMENT

Bengal Live রায়গঞ্জঃ দলীয় নেতাদের সঙ্গে রাজ্য সভাপতির বৈঠককে ঘিরে প্রকাশ্যে চলে এল উত্তর দিনাজপুর জেলা বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব। বিজেপির সাংগঠনিক সভায় ডাক না পেয়ে দীর্ঘক্ষণ বাইরেই দাঁড়িয়ে থাকলেন উত্তর দিনাজপুর জেলা বিজেপির প্রাক্তন দুই সভাপতি নির্মল দাম ও শঙ্কর চক্রবর্তী। সোমবার রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের নেতৃত্বে উত্তর দিনাজপুর জেলা বিজেপির সাংগঠনিক সভা চলাকালীন সভাকক্ষের বাইরের রাস্তায় ঘুরতে দেখা যায় নির্মল দামকে। অন্যদিকে প্রায় ঘণ্টাখানেক সভা চলার পর প্রায় শেষের দিকে সাংগঠনিক বৈঠকে উপস্থিত হওয়ার ডাক পান অপর প্রাক্তন জেলা সভাপতি শঙ্কর চক্রবর্তী।

সোমবার বিজেপি বিধায়ক প্রয়াত দেবেন্দ্রনাথ ওরফে দেবেন রায়ের বাড়িতে যান বিজেপিরর রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। প্রয়াত বিধায়কের স্ত্রী ও তাঁর সন্তানের সাথে কথা বলেন তিনি। তাঁদের পাশে থাকার বার্তা দেওয়ার পাশাপাশি বিধায়কের মূর্তির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন দিলীপ ঘোষ। এরপর বিন্দোলের কয়লাডাঙি এলাকায় প্রয়াত বিধায়কের স্মরণসভায় যোগ দিয়ে সোজা কর্ণজোড়ার বিশ্বাস ভবনে সাংগঠনিক সভায় যোগ দেন রাজ্য বিজেপির শীর্ষ নেতা।

এদিকে সাংগঠনিক সভা শুরু হওয়ার কিছুক্ষণ পরেই দেখা যায়, বৈঠকে ডাক না পেয়ে ভবনের বাইরেই ঘুরে বেড়াচ্ছেন জেলা বিজেপির প্রাক্তন সভাপতি নির্মল দাম। রাজ্য সভাপতির নেতৃত্বে যখন জেলা বিজেপির সাংগঠনিক সভা চলছে তখন জেলার প্রাক্তন সভাপতি সেখানে উপস্থিত নেই ? এই প্রশ্নই তখন ঘোরাফেরা করছিল বিজেপির অন্যান্য নেতা ও কর্মীদের মধ্যে। যদিও এই প্রশ্ন সরাসরি নির্মল দামকে করা হলে তিনি কোনও মন্তব্য করতে চাননি। যদিও ক্ষোভের আঁচ বুঝতে পেরে পরবর্তীতে নির্মল দামকে বৈঠকে ডেকে নিয়ে যান জেলা বিজেপির বর্তমান সম্পাদক। একই চিত্র দেখা গেল আরেক প্রাক্তন জেলা সভাপতি শঙ্কর চক্রবর্তীর ক্ষেত্রেও। বৈঠক শুরুর প্রায় ঘন্টা খানেক পর তাঁকে দেখা যায় সেখানে। কেন তিনি বৈঠকে নেই ? প্রশ্ন করা হলে শঙ্কর চক্রবর্তীর সাফ জবাব, দল এতক্ষণ ডাকেনি তাই আসিনি, এখন ডেকেছে তাই এসেছি৷ আমি দলের সৈনিক। দল যখন ডাকবে, আসবো।

ওই দুই প্রাক্তন জেলা সভাপতি এদিনের সাংগঠনিক বৈঠকে আগে থেকে কেন ডাক পাননি, তার স্পষ্ট ব্যাখ্যা অবশ্য দলের পক্ষ থেকে পাওয়া যায়নি। যদিও গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের বিষয়টিকে মানতে চাননি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, দলে কোনও গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব নেই। বিজেপিতে একটাই গোষ্ঠী সেটা ভারতীয় জনতা পার্টি। উঁনারা বাইরে ছিলেন জানার পরেই ডেকে নেওয়া হয়েছে। বৈঠকে ছিলেন তাঁরা৷

Related News

Leave a Reply

Back to top button