রায়গঞ্জ

কালিয়াগঞ্জে ফসলের জমিতে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে একটি ষাঁড় সহ সাত শেয়ালের মৃত্যু

ফসল বাঁচানোর উদ্দেশ্য নিয়ে জমি ঘিরেছিলেন বৈদ্যুতিক তার দিয়ে। সেই তারে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হল সাতটি শেয়াল ও একটি ষাঁড়ের। পলাতক জমির মালিক।

 

Bengal Live কালিয়াগঞ্জঃ গমের ক্ষেত ঘিরে রাখা বৈদ্যুতিক তারে বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হল একটি ষাঁড় ও সাতটি শেয়ালের। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর দিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জ থানার ধনকৈল গ্রাম পঞ্চায়েতের দুর্গাপুর ঝাড়পাড়া এলাকায়। ঘটনার পর থেকেই পলাতক ওই গমের জমির মালিক সুমন রায় ও ভদ্র রায়। ঘটনার খবর পেয়ে ঝাড়পাড়া গ্রামে ছুটে আসে কালিয়াগঞ্জ থানার পুলিশ ও উত্তর দিনাজপুর পিপল ফর অ্যানিমেলস-এর সদস্যরা। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কালিয়াগঞ্জ থানায় জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা দায়ের করেছে পশুপ্রেমী সংস্থা উত্তর দিনাজপুর পিপল ফর অ্যানিমেলস। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে কালিয়াগঞ্জ থানার পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, কালিয়াগঞ্জ থানার ধনকৈল গ্রাম পঞ্চায়েতের দুর্গাপুর ঝাড়পাড়া গ্রামের বাসিন্দা সুমন রায় ও ভদ্র রায় তাদের জমির ফসল রক্ষা করার জন্য জমির চারদিক ইলেক্ট্রিকের তার দিয়ে ঘিরে তাতে বিদ্যুৎ সংযোগ করে রেখেছিলেন। বুধবার রাতে সেই গমের ক্ষেতে ঢুকতে গিয়ে একটি ষাঁড় সহ ৭ টি শেয়াল বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা যায়।

মৃত পশুগুলিকে মাটি চাপা দিয়ে ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেন অভিযুক্ত দুজন। তা টের পেয়েই গ্রামের বাসিন্দারা খবর দেন কালিয়াগঞ্জ পুলিশ এবং পশুপ্রেমী সংস্থাকে। সকালেই ঘটনাস্থলে ছুটে আসে কালিয়াগঞ্জ থানার পুলিশ ও পশুপ্রেমী সংস্থা উত্তর দিনাজপুর পিপল ফর অ্যানিমেলস-এর সদস্যরা। পশুপ্রেমী সংস্থার পক্ষ থেকে বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইন ১৯৭২, ৪২৮ আইপিসি, পশু ক্লেশ নিবারণী আইন ১৯৬০ এবং সম্পূর্ণ অবৈধভাবে বিদ্যুৎ ব্যবহারের অভিযোগ জানিয়ে কালিয়াগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করে পশুপ্রেমী সংস্থা উত্তর দিনাজপুর পিপল ফর অ্যানিমেলস। ঘটনার পর থেকেই অভিযুক্ত সুমন রায় ও ভদ্র রায় গ্রাম ছেড়ে পালিয়েছেন। মৃত পশুগুলির ময়নাতদন্তের জন্য কালিয়াগঞ্জ পশু হাসপাতালে পাঠানোর পাশাপাশি ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে কালিয়াগঞ্জ থানার পুলিশ।

Related News

Leave a Reply

Back to top button