রায়গঞ্জ

করণদিঘিতে তুমুল অসন্তোষ তৃণমূলে, ভূমিপুত্রকেই প্রার্থী করার দাবি

প্রার্থী তালিকায় নাম নেই। টিকিট না পেয়ে ক্ষোভে ফুঁসছেন উত্তর দিনাজপুর জেলার করণদিঘির বিদায়ী বিধায়ক মনোদেব সিনহা।

 

Bengal Live রায়গঞ্জঃ “বাংলা যেমন নিজের মেয়েকেই চায়, করণদিঘি বাসীও তেমন ভূমিপুত্রকেই চায়। বাইরের কোনও প্রার্থীকে মেনে নেওয়া হবে না৷” ঠিক এই ভাষাতেই এবার প্রার্থী তালিকা নিয়ে ক্ষোভ উগরে দিলেন করণদিঘির তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক মনোদেব সিনহা। ফলে রায়গঞ্জ, ইটাহার, চাকুলিয়ার পাশাপাশি এবার প্রার্থী নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ্যে করণদিঘিতেও। প্রতিটি জায়গায় স্থানীয় নেতৃত্বের দাবি, প্রার্থী বদল করা হোক। তবে এই দাবি দলনেত্রী কতটা মানবেন তা সময়ই জবাব দেবে।

ইটাহারের পর তৃণমূলের প্রার্থী নিয়ে ক্ষোভ এবার চাকুলিয়ায়, ক্ষুব্ধ দলের ব্লক সভাপতি

২০১৬ সালে ফরওয়ার্ড ব্লকের প্রার্থী গকুল রায়কে মাত্র ৩২৩২ ভোটে পরাজিত করে তৃণমূল কংগ্রেসের টিকিটে বিধায়ক হন পেশায় শিক্ষক মনোদেব সিনহা। মনোদেব সিনহা ভোট পেয়েছিলেন ৫৪৫৯৯। আর ফরওয়ার্ড ব্লকের প্রার্থী গকুল রায়ের ঝুলিতে ছিল ৫১৩৬৭ ভোট৷ এই কেন্দ্রে ৩৫৫৪৭ টি ভোট পেয়ে তৃতীয় আসনে ছিলেন নির্দল প্রার্থী শেখ সামসুল। বিগত পাঁচ বছর ওই কেন্দ্রে বিধায়ক ও জেলা কমিটির কো-অর্ডিনেটর পদে ছিলেন মনোদেব সিনহা। ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনে দল তাঁকেই প্রার্থী করবে বলে আশা করে থাকলেও দলনেত্রীর প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হওয়ার পর হতাশ হতে হয় মনোদেব সিনহাকে। জানা যায়, করণদিঘিতে উত্তর দিনাজপুর জেলা যুব তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি গৌতম পালকে প্রার্থী হিসেবে দাঁড় করিয়েছেন দলনেত্রী। এরপর থেকেই ক্ষোভের সুর শোনা যাচ্ছিল মনোদেব সিনহার গলায়।

ইতিমধ্যেই ব্লক নেতৃত্বের সাথে একাধিক বৈঠক করেছেন মনোদেব সিনহা। তবে তাঁর আগামী পদক্ষেপ কী হবে সেই বিষয়ে এখনও কিছু চূড়ান্ত হয় নি। মঙ্গলবার মনোদেব সিনহা জানিয়েছেন, “বাংলা যেমন নিজের মেয়েকেই চায়, তেমন করণদিঘিবাসীও ভূমিপুত্রকেই চায়। প্রার্থীর বিষয়ে সুপ্রিমোর আশ্বাস পেয়েছিলাম। কিন্তু হঠাৎ করে তা বদলে গেল। কী করে আমি অযোগ্য হয়ে পড়লাম জানি না। তাছাড়া, করণদিঘি কি এতটাই অযোগ্য যে, বাইরে থেকে প্রার্থী আনতে হবে? কারোরই কি যোগ্যতা নেই? আমাকে পুরোপুরি ছুড়ে ফেলে দিয়েছে। তাই আমরা ব্লক নেতৃত্বকে সাথে নিয়ে আমরা বৈঠক করেছি। সিদ্ধান্ত হয়েছে, করণদিঘি ভূমিপুত্র চায়। বাইরের কোনও প্রার্থী মেনে নেওয়া হবে না।

উত্তরবঙ্গের বঞ্চনাকে ইস্যু করে ৫৪ আসনে প্রার্থী দেবে নবগঠিত উত্তরবঙ্গ পিপলস পার্টি

মনোদেব সিনহা আরও বলেন, প্রার্থী বাছাই-এর ক্ষেত্রে ব্লক নেতৃত্বের কোন মতামত নেওয়া হয়নি। বাইরের প্রার্থীকে চাপিয়ে দেওয়া হল। করণদিঘির ভোটাররা ক্ষোভে ফুঁসছে।

Related News

Leave a Reply

Back to top button