রায়গঞ্জ

ত্রিমুখী নয়, কালিয়াগঞ্জ বিধানসভা উপনির্বাচনে প্রার্থী সংখ্যা ছয়

ছয় প্রার্থীর কালিয়াগঞ্জে লড়াই হবে ত্রিমুখী। ভোটের ময়দানে সম্মুখ সমরে বাম-কংগ্রেস, বিজেপি, তৃণমূল। কে পূরণ করবে প্রয়াত বিধায়ক পি এন রায়ের শূন্য স্থান ?

Bengal Live রায়গঞ্জঃ কালিয়াগঞ্জ বিধানসভা উপনির্বাচনে মোট প্রার্থী ছয়। তৃণমূল কংগ্রেস,বিজেপি ও কংগ্রেস ছাড়াও এই উপনির্বাচনে লড়াই করছে সিপিআই(এমএল), সমাজবাদী পার্টি। নির্দল প্রার্থী হিসেবে লড়াই করছেন একজন প্রার্থী। বৃহস্পতিবার স্ক্রুটিনি পর্ব শেষ নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে এমনটাই জানানো হয়েছে।

নির্বাচনী প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার পর গত ৪ নভেম্বর মনোনয়ন পত্র জমা করেন বাম ও কংগ্রেস জোট প্রার্থী ধীতশ্রী রায়। বাম ও কংগ্রেসের জেলা নেতৃত্বকে সাথে নিয়ে মনোনয়ন পত্র জমা দেন তিনি। এরপর মনোনয়ন দাখিলের শেষ দিন ৬ নভেম্বর একই সাথে বিজেপি প্রার্থী কমল চন্দ্র সরকার ও তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী তপন দেব সিনহা মিছিল করে মনোনয়ন জমা করেন।

আরও পড়ুনঃ কালিয়াগঞ্জে তৃণমূলকে তাড়াতে মহিলাদের ঝাঁটা বাহিনী গড়ার ডাক বিজেপির,নিন্দা তৃণমূলের

মনোনয়ন দাখিল পর্বের শেষে এদিন ছিল স্ক্রুটিনি। সেই প্রক্রিয়া শেষে নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, কালিয়াগঞ্জ উপনির্বাচনে মোট ছয় জন প্রার্থী মনোনয়ন দাখিল করেছেন। বিজেপি, কংগ্রেস, তৃণমূল কংগ্রেস ছাড়াও সেই তালিকায় রয়েছে সিপিআই(এমএল) ও সমাজবাদী পার্টি। নির্দল প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন একজন।

কমিশন সূত্রে জানা গেছে, সিপিআই(এমএল) প্রার্থী করেছে কালিয়াগঞ্জের বাঘন এলাকার স্কুলপাড়ার বাসিন্দা জগদীশ রাজভরকে। সমাজবাদী পার্টির হয়ে নির্বাচনে লড়াই করছেন মাধবপুরের চাঁদগাওয়ের বাসিন্দা প্রদীপ কুমার রায়। নির্দল প্রার্থী হিসেবে উপনির্বাচনে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন মুদাফৎ এলাকার বাসিন্দা জরং-এর ডরবিন্দু সরকার।

আরও পড়ুনঃ মান্নান, সুজনকে নিয়ে রাজভবনে মোহিত, অভিযোগ জানালেন রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে

জেলার রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের দাবি, ছয় জন প্রার্থী নির্বাচনে লড়াই করলেও আসল লড়াই বাম-কংগ্রেস, বিজেপি ও তৃণমূলের মধ্যে। এই নির্বাচন ত্রিমুখী লড়াইয়ের জন্য প্রস্তুতি নিয়েছে। প্রাক্তন কংগ্রেস বিধায়ক তথা রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী প্রমথ নাথ রায়ের অকাল প্রয়ানের পরেই বিধায়ক শূণ্য হয় উত্তর দিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জ বিধানসভা আসনটি।

লোকসভা নির্বাচনে এই ব্লক থেকে ৫০ হাজারেরও বেশি ভোটে এগিয়ে ছিল বিজেপি। এদিকে পঞ্চায়েত সমিতি, পুরসভা তৃণমূল কংগ্রেসের দখলে থাকলেও এই অঞ্চল থেকে বিধানসভা ভোটে এখনও জয় পায়নি রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। ফলে এই নির্বাচন একাধারে যেমন কংগ্রেসের গড় রক্ষার লড়াই তেমনই কালিয়াগঞ্জকে নিজেদের শক্তঘাঁটি রূপে ফের প্রমান করতে লড়াইয়ে নামছে বিজেপিও। এদিকে জেলার মধ্যে আরও একটি বিধানসভা নিজেদের দখলে রাখতে মরিয়া প্রয়াস চালাচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেসও। ফলে ছয় প্রার্থী নির্বাচনে দাঁড়ালেও আসল লড়াই যে হতে চলেছে এই প্রধান তিন দলের মধ্যে তা বলাই বাহুল্য।

Tags

Leave a Reply

Back to top button
Close