রায়গঞ্জ

লক্ষ লক্ষ টাকা প্রতারণার অভিযোগ ব্রাঞ্চ পোস্ট মাস্টারের বিরুদ্ধে, চাঞ্চল্য ইটাহারের হাটগাছিতে

Join our WhatsApp group

কোনও বেসরকারি চিটফান্ড নয়৷ সরকারি পোস্ট অফিসেই টাকা রেখে প্রতারিত হয়েছেন শতাধিক গ্রাহক। এমনই অভিযোগ উঠেছে ইটাহারের একটি ব্রাঞ্চ পোস্ট অফিসের পোস্ট মাস্টারের বিরুদ্ধে।

পূজা মণ্ডপে প্রবেশ নিয়ে নির্দেশে রদবদল হাই কোর্টের, কতজনের মিলবে প্রবেশাধিকার ?

Bengal Live রায়গঞ্জঃ ব্রাঞ্চ পোস্ট অফিসের পোস্ট মাস্টারের বিরুদ্ধে আর্থিক প্রতারণার অভিযোগ। পঞ্চমীর সকাল থেকে এই নিয়ে দিনভর উত্তেজনা চলল উত্তর দিনাজপুর জেলার ইটাহারের হাটগাছি এলাকায়। অভিযোগ, শতাধিক গ্রাহকের সাথে লক্ষ লক্ষ টাকা প্রতারণা করেছেন ইটাহার হাটগাছি শাখা পোস্ট অফিসের পোস্ট মাস্টার। পোস্ট অফিসের সামনে এদিন বিক্ষোভ দেখানোর পাশাপাশি জমানো পুঁজি খুইয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন গ্রাহকরা। পোস্টাল বিভাগের উচ্চপদস্থ কর্তারা তদন্তে গেলে তাঁদের কাছেও আরও একবার নিজেদের ক্ষোভের কথা জানান প্রতারিত গ্রাহকরা ৷ অভিযুক্ত পোস্ট মাস্টারের বিরুদ্ধে ইটাহার থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন গ্রাহকরা৷ পাশাপাশি পোস্টাল বিভাগের এসপি-র কাছেও অভিযোগ জানিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্ত গ্রাহকরা৷ অভিযোগ পাওয়ার সাথে সাথেই পুরো বিষয়টি নিয়ে সরেজমিনে তদন্তে নেমেছে পুলিশ ও পোস্টাল বিভাগ।

বিক্ষোভরত গ্রাহক পেশায় কৃষক আবদুল রহিমের অভিযোগ, পোস্ট অফিসে ২ লক্ষ ৮৫ হাজার টাকা রেখেছিলাম। সেই টাকার কোনও খোঁজ নেই। পোস্ট অফিসের বইও নেই। আমরা গরীব মানুষ। এখন এই টাকা ফেরৎ না পেলে পথে বসা ছাড়া কোনও উপায় থাকবে না।

আবদুলের মতন শতাধিক মানুষ ওই পোস্ট অফিসে টাকা রেখে প্রতারিত হয়েছেন বলে অভিযোগে সরব হয়েছেন গ্রামবাসীরা। গচ্ছিত টাকার ব্যাপারে ওই ব্রাঞ্চ পোস্ট অফিসের পোস্ট মাস্টারের কাছ থেকে কোনও সদুত্তর না পেয়ে গ্রাহকরা পোস্টাল বিভাগের এসপি ও ইটাহার থানায় প্রতারনার অভিযোগ দায়ের করেন।

মুগ ডালে দেশের মানচিত্র এঁকে নজর কাড়ল উত্তরের যুবক

এদিন রায়গঞ্জের অ্যাসিস্ট্যান্ট সুপারিন্টেন্ডেন্ট অফ পোস্টাল সার্ভিস ঘটনার তদন্ত করতে হাটগাছি ব্রাঞ্চ পোস্ট অফিসে গেলে তাঁর কাছে গ্রাহকরা ফের একবার তাঁদের ক্ষোভের কথা জানান। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন এএসপিএস। এদিকে ইটাহার থানার পুলিশ জানিয়েছে, পোস্ট মাস্টারের বিরুদ্ধে গ্রাহকদের অভিযোগের ভিত্তিতে একটি প্রতারণার মামলা করা হয়েছে৷ পাশাপাশি পুলিশের তরফ থেকেও বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

Related News

Leave a Reply

Back to top button