রায়গঞ্জ

শুভেন্দু অধিকারীর পোস্টারে ছয়লাপ রায়গঞ্জ, প্রচারক গার্গী মুখার্জি

কোথাও লেখা জনতার নেতা, কোথাও শ্রেষ্ঠ সাংগঠনিক সম্রাট। কোথাও জননেতার জয়ধ্বনি লেখা পোস্টার।

 

Bengal Live রায়গঞ্জঃ শুভেন্দু অধিকারীর পোস্টারে ছয়লাপ রায়গঞ্জ। উত্তর দিনাজপুর জেলা বিজেপির কার্যালয় থেকে শুরু করে রেল গেট, ঘড়ি মোড়, লাইন বাজার সহ একাধিক জায়গায় শনিবার সকালে চোখে পড়ল পোস্টার। তবে অনুগামীর পরিবর্তে সরাসরি প্রচারকের নাম দিয়ে পোস্টার পড়েছে এবার৷ পোস্টারে কোথাও জনতার নেতা, কোথাও শ্রেষ্ঠ সাংগঠনিক সম্রাট, কোথাও জননেতার জয়ধ্বনি লেখা থাকলেও নেই তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতীক, নেই দলনেত্রীর কোনও ছবি। ফলে বিষয়টিকে নিয়ে শহরজুড়ে জোর চর্চা শুরু হয়েছে।

কিষাণ ইউনিয়নের ডাকা ভারত বনধে সমর্থন প্রদেশ কংগ্রেসের, জানালেন অধীর চৌধুরী

গত কিছুদিন থেকেই দলের থেকে দূরত্ব তৈরি হয়েছে শুভেন্দু অধিকারীর। ইতিমধ্যেই মন্ত্রীসভা থেকে পদত্যাগ করেছেন তিনি। তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে বেশ কয়েক দফায় প্রাক্তন পরিবহন মন্ত্রীর সাথে বৈঠকে বসা হলেও তা ফলপ্রসূ হয়নি। একসাথে আর কাজ করা সম্ভব নয় বলেই দলকে জানিয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী৷ এদিকে দলের সাথে দূরত্ব তৈরি হতেই রাজ্যজুড়ে “আমরা দাদার অনুগামী” পোস্টার নজরে এসেছে। তবে কে বা কারা রাতের অন্ধকারে এই পোস্টার লাগাচ্ছেন, তা নিয়ে এখনও কিছু জানা যায়নি। বিজেপির দাবি, শুভেন্দু অধিকারী দল ছাড়ার পর যারা তৃণমূল ছাড়বেন বলে ঠিক করেছেন, তাঁরাই এই পোস্টার লাগানোর সাথে যুক্ত। তবে মন্ত্রীসভা থেকে ইস্তফা দিলেও এখনও তৃণমূল কংগ্রেস ছাড়েননি শুভেন্দু অধিকারী। বিধায়ক পদ থেকেও ইস্তফা দেননি তিনি৷ ফলে দল থেকে দূরত্ব বাড়লেও তাঁর পরবর্তী পদক্ষেপ নিয়ে এখনও যথেষ্ট ধোঁয়াশা রয়েছে। সূত্রের খবর, আগামী রবিবার সাংবাদিক বৈঠক করতে পারেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী। সেই সাংবাদিক সম্মেলন থেকেই তাঁর পরবর্তী পদক্ষেপ সম্পর্কে ঘোষণা করবেন বলে আশাবাদী শুভেন্দু অধিকারীর অনুগামীরা।

অদ্ভুতুড়ে কাণ্ড রায়গঞ্জের হাতিয়া পালোইবাড়িতে, ভূতের ভয়ে তটস্থ দাস পরিবার

এদিকে শনিবার সকাল থেকে রায়গঞ্জে যেইসব পোস্টার নজরে এসেছে তার প্রত্যেকটিতেই প্রচারক হিসেবে নাম রয়েছে গার্গী মুখার্জীর। তবে প্রচারকের পরিচয় নিয়ে এখনও কিছু জানা যায়নি৷ গার্গী মুখার্জী কে? কী তাঁর পরিচয়? তিনি কি তৃণমূল কংগ্রেসের কেউ, নাকি অন্য কোনও রাজনৈতিক দলের সাথে যুক্ত, নাকি শুভেন্দু অধিকারীর ঘনিষ্ঠ কেউ তা নিয়েই জোর চর্চা শুরু হয়েছে জেলার রাজনৈতিক মহলে।তবে তিনি যে কলকাতার বাসিন্দা, তার ইঙ্গিত মিলেছে পোস্টার থেকেই।

এই বিষয়ে জেলা বিজেপির সভাপতি বিশ্বজিৎ লাহিড়ী বলেন, বিজেপি ব্যক্তি কেন্দ্রিক দল নয়৷ বিজেপি আদর্শের পূজারী। তাই যাঁরা ব্যক্তিকেন্দ্রিক তাঁরা এইসব নিয়ে নাচানাচি করবেন। তাছাড়া শুভেন্দু অধিকারী দল ছাড়লে শহরের অনেক প্রথম সারির তৃণমূল নেতারাও দল ছাড়বেন। আমাদের ধারণা তাঁরাও ওই পোস্টার লাগাতে পারেন। ভারতীয় জনতা পার্টি কোনও ব্যক্তিকে নিয়ে মাতামাতি করে না।

জানেন কি আপনার শিশু মিথ্যে বলে কেন ? জেনে নিন, সংশোধনের পথ খুঁজে পাবেন

এদিকে জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্র সন্দীপ বিশ্বাস বলেন, গণতান্ত্রিক দেশে যে কারোর পোস্টার পড়তে পারে। এটা নিয়ে কোনও চিন্তার বিষয় নেই। রায়গঞ্জের লোক নন এমন একজন মানুষ রায়গঞ্জে পোস্টার লাগিয়েছেন, এমন খবর পেয়েছি, তবে আমাদের বক্তব্য, তৃণমূল থাকবে মানুষের খেয়ালে, বাকিরা থাকবে দেওয়ালে, পোস্টারে।

Related News

Leave a Reply

Back to top button