রায়গঞ্জ

Bengal Live-এ খবর প্রকাশের পর বাস বে দখলমুক্ত করল রায়গঞ্জ পুরসভা,শুরু হলো যানচলাচল

বেঙ্গল লাইভে খবর প্রকাশের পরেই বাস বে দখল মুক্ত করতে উদ্যোগ রায়গঞ্জ পুরসভার। ব্যবসায়ীদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করল পুর কর্তৃপক্ষ। বাস বে দিয়ে চলাচল শুরু করল যাত্রীবাহী গাড়ি।

 

 

Bengal Live রায়গঞ্জঃ বেঙ্গল লাইভের খবরের জের। মোহনবাটির বাস বে দখল মুক্ত করল রায়গঞ্জ পুরসভা। শুক্রবার রাতে রায়গঞ্জ পুরসভার পুরপতি সন্দীপ বিশ্বাস, উপ পুরপতি অরিন্দম সরকার সহ পুরসভার একাধিক কাউন্সিলর ও আধিকারিক বাস বে দখল মুক্ত করতে পথে নামেন। ওই এলাকার ব্যবসায়ীদের পুনর্বাসন দেওয়ার পাশাপাশি বাস বে দিয়ে যেন সুষ্ঠভাবে যানবাহন চলাচল করতে পারে সেই উদ্যোগ নিল রায়গঞ্জ পুরসভা কর্তৃপক্ষ।

ADVERTISEMENT

রায়গঞ্জ শহরের সবচেয়ে ব্যস্ততম এলাকা নেতাজী সুভাষ রোডের ধারে মোহনবাটি বাজার এলাকা। সরকারি ও বেসরকারি বাসস্ট্যান্ড থেকে বাসগুলি বেরিয়ে মোহনবাটি বাজার বাসস্ট্যান্ডে যাত্রী তোলার জন্য অপেক্ষা করে। আর এতেই তীব্র যানজটে অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে রায়গঞ্জ শহর। রায়গঞ্জ শহরের মোহনবাটি এলাকার এই যানজট সমস্যা দূর করার লক্ষ্যে রায়গঞ্জ পুরসভা মোহনবাটি এলাকার ফলপট্টি থেকে শুরু করে সবুজ সংঘ পর্যন্ত একটি আলাদা লেন তৈরি করে দেয়। সেই লেন দিয়েই সমস্ত যাত্রীবাহী বাস ও যানবাহন যাত্রী তুলে নিয়ে বাস-বে দিয়ে মেইন রাস্তায় উঠে যাবে।

রায়গঞ্জ পুরসভা কয়েক লক্ষ টাকা খরচ করে মোহনবাটি এলাকায় ডাবল লেন তৈরি করে বাস-বে করলেও তা কার্যত স্থানীয় দোকানদারদের দখলে চলে যায়। বাস-বে রাস্তায় অস্থায়ী দোকানপাটের পাশাপাশি মোটরবাইক ও প্রাইভেট গাড়ির পার্কিং হয়ে দাঁড়ায়। ফলে সেদিক দিয়ে কোনও যাত্রীবাহী যানবাহন চলাফেরা করতে পারছিল না। এদিকে বাস-বে করার জন্য মোহনবাটি এলাকার মেইন রাস্তা এন এস রোড ছোট হয়ে যাওয়ায় সমস্যা আগের চাইতে তীব্র আকার ধারণ করে।

রায়গঞ্জে বাস-বে বেদখল, সঙ্কীর্ণ রাস্তায় যানজটে নাকাল শহরবাসী

সাধারণ বাসিন্দাদের পক্ষ থেকে বাস বে দখলমুক্ত করে সঠিক ভাবে চালু করার দাবি তোলা হয়। গত ১৫ ফেব্রুয়ারি বেঙ্গল লাইভে এই খবর প্রকাশিত হওয়ার পরেই তৎপরতার সাথে বাস বে দখলমুক্ত করতে উদ্যোগ গ্রহণ করে পুর কর্তৃপক্ষ।

রায়গঞ্জ পুরসভার পুরপতি সন্দীপ বিশ্বাস ও উপ পুরপতি অরিন্দম সরকার জানান, এলাকার প্রায় ৯০ শতাংশ ব্যবসায়ীকে পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করে দিয়েছি। মানুষের রাস্তা মানুষকে ফেরৎ দেওয়া হয়েছে। এখন থেকে এই বাস বে দিয়েই যানচলাচল করবে৷ পুরসভার এই উদ্যোগে খুশি সাধারণ মানুষ।

Related News

Leave a Reply

Back to top button