রায়গঞ্জ

সুভাষগঞ্জের দুঃস্থ রোগীর পাশে দাঁড়ালো রায়গঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতি

সুভাষগঞ্জের দুঃস্থ রোগীর পাশে দাঁড়ালো রায়গঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতি

Bengal Live রায়গঞ্জঃ সুভাষগঞ্জের দুস্থ রোগী জয়দেব শীলকে আর্থিক সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিল রায়গঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতি। বৃহস্পতিবার রায়গঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি মানস ঘোষ জয়দেব বাবুর হাতে ১০ হাজার টাকা তুলে দেন। মানস বাবু বলেন, সংবাদমাধ্যমে খবর দেখে জয়দেব বাবুর কথা জানতে পারি। এরপরেই এদিন রায়গঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতির পক্ষ থেকে তাঁকে ১০ হাজার টাকা তুলে দেওয়া হয় চিকিৎসার জন্য। মাড়াইকুড়া গ্রাম পঞ্চায়েতকেও বলা হয়েছে জয়দেব বাবুর চিকিৎসার জন্য আর্থিক সাহায্য করার জন্য।

পেশায় টোটো চালক রায়গঞ্জ ব্লকের সুভাষগঞ্জ এলাকার বাসিন্দা জয়দেব শীল বেশ কিছুদিন ধরে কান ও মাথার যন্ত্রণায় ভুগছেন। নিজের জমানো সমস্ত টাকা দিয়ে কোনও রকমে দক্ষিণ ভারতের হায়দ্রাবাদে চিকিৎসার জন্য গিয়েছিলেন। সেখানে চিকিৎসক তাঁকে পরীক্ষা করে দ্রুত অপরেশন করার পরামর্শ দেন। সেই অস্ত্রোপচারের জন্য কমপক্ষে সাড়ে তিন লক্ষ টাকা খরচ হবে বলে জানিয়েছেন জয়দেব বাবুর স্ত্রী শিল্পী শীল। এরপর স্বামীর চিকিৎসার খরচ জোগার করতে উদ্যোগী হন তিনি। যদিও তাতে আশাব্যঞ্জক কোনও ফল পাওয়া যায়নি। এরপরেই স্থানীয় যুবকদের কাছে বিষয়টি জানান শিল্পী দেবী। দুস্থ রোগীর অপারেশনের টাকা জোগাতে চাঁদা তোলার উদ্যোগ নিয়ে পথে নামে প্রতিবেশী মানবিক যুবকেরা।

সংবাদ মাধ্যমে এই খবর সম্প্রচার হতেই রায়গঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতির পক্ষ থেকে জয়দেব বাবু সম্পর্কে খোঁজ শুরু করা হয়। এরপর এদিন আর্থিক সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়া হয়। সমিতির সহ সভাপতি মানস ঘোষ বলেন, “শুধু আর্থিক সাহায্যই নয়। জয়দেব বাবুর চিকিৎসার খরচ জোগার করতে এলাকার যুবকদের সাথে আমরাও চাঁদা তুলতে বের হবো।”

জয়দেব শীলের স্ত্রী শিল্পী দেবী বলেন, ছয় জনের সংসারে নুন আনতে পান্তা ফুরিয়ে যায়। সেখানে স্বামীর চিকিৎসার জন্য তিন লক্ষাধিক টাকার বন্দোবস্ত করা স্বপ্নের মতন। তার উপর শারীরিক অসুস্থতার কারণে কাজেও যোগ দিতে পারছেন না তিনি। বাধ্য হয়ে মেজো ছেলের মাধ্যমিক পরীক্ষার ফল বেরোনর পর তাঁকেই টোটো নিয়ে বেরোতে হচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে কোথাও কোনও সাহায্য না পেয়ে স্থানীয় যুবকদের কাছে গিয়ে জানিয়েছিলাম এই সমস্যার কথা। পঞ্চায়েত সমিতি আর্থিক সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়ায় আমরা খুশি।

Related News

Leave a Reply

Back to top button