রায়গঞ্জ

ট্রাঙ্কের ভেতর ভাইয়ের লাশ, থানায় মা ও দাদা, থ্রিলারের তদন্তে পুলিশ

ট্রাঙ্কের ভেতর ভাইয়ের লাশ, থানায় মা ও দাদা, থ্রিলারের তদন্তে পুলিশ

Bengal Live রায়গঞ্জঃ অত্যাচারের হাত থেকে মাকে বাঁচাতে নিজের ছোট ভাইকে খুন করার অভিযোগ দাদার বিরুদ্ধে। মৃতদেহ লোপাট করার আগেই পুলিশের জালে দাদা অরুন কুমার রায়। এদিকে রায়গঞ্জ রাজ্য পুলিশের চতুর্থ ব্যাটেলিয়নে কনস্টেবল পদে কর্মরত অরুন কুমার রায়কে বাঁচাতে খুনের দায় স্বীকার করে থানায় আত্মসমর্পণ করেন অরুন বাবুর মা ধৌলি রায়ও । তাঁর দাবী, ছোট ছেলে বরুন কুমার রায়ের অত্যাচার থেকে বাঁচতে তিনিই খুন করেছেন।
এমনই ক্রাইম থ্রিলারের ঘটনাকে নিয়ে সরগরম আলিপুরদুয়ার জেলার মাদারিহাট থানার পশ্চিম খয়ারবাড়ি এলাকা।

শনিবার সন্ধ্যা নাগাদ ফালাকাটা স্টেশনের প্ল্যাটফর্মের পূর্ব প্রান্তে দীর্ঘক্ষণ থেকে দাঁড়িয়ে থাকা মারুতি ভ্যানকে দেখে সন্দেহ হয় আরপিএফ কর্মীদের। গাড়ির পেছনে রাখা বিশালাকার ট্রাঙ্ক দেখে অরুন কুমার রায়কে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন রেল পুলিশের কর্মীরা। প্রথমে নানা রকম টালবাহানা করলেও পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদের কাছে হার মেনে অবশেষে ভাইয়ের মৃতদেহের কথা স্বীকার করে নেন তিনি। ট্রেনে ট্রাঙ্কটি উঠিয়ে মৃতদেহ লোপাট করার ছক কষেছিলেন অরুন কুমার রায় বলেও রেল পুলিশের জেরায় স্বীকার করেন অরুন।

এদিকে সন্ধ্যা নাগাদ ফালাকাটা আরপিএফ আউটপোস্টে অরুন ও বরুন রায়ের বৃদ্ধা মা এসে হাজির হন বলে সূত্রের খবর। চিৎকার করে খুনের ঘটনার দায় স্বীকার করেন তিনি। মদ্যপ ছেলের অত্যাচার থেকে বাঁচতে তিনিই ছোট ছেলে বরুন রায়কে খুন করেছেন বলে পুলিশের কাছে দাবী করেন ধৌলি রায়।
তাঁর স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে ধৌলি দেবীকেও পুলিশ গ্রেপ্তার করে তদন্ত শুরু করেছে।

Tags

Leave a Reply

Back to top button
Close