রায়গঞ্জ

বিন্দোল পঞ্চায়েতের প্রধানকে দল থেকে সাসপেণ্ড করল তৃণমূল

দুর্নীতির অভিযোগে বিন্দোল গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান লায়লা খাতুনকে দল থেকে সাসপেণ্ড করল তৃণমূল কংগ্রেস। শনিবার সাংবাদিক সম্মেলন করে এই ঘোষণা করেন উত্তর দিনাজপুর জেলা তৃণমূল সভাপতি কানাইয়ালাল আগরওয়াল।

Bengal Live রায়গঞ্জঃ দুর্নীতির অভিযোগে বিন্দোল গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান লায়লা খাতুনকে দল থেকে সাসপেণ্ড করল তৃণমূল কংগ্রেস। শনিবার সাংবাদিক সম্মেলন করে এই ঘোষণা করেন উত্তর দিনাজপুর জেলা তৃণমূল সভাপতি কানাইয়ালাল আগরওয়াল।

জেলা সভাপতি কানাইয়ালাল আগরওয়াল বলেন, ৩ জুলাই বিন্দোল গ্রাম পঞ্চায়াতের ১০ জন সদস্য প্রধান লায়লা খাতুনের বিরুদ্ধে পঞ্চায়েতের টাকা তছরুপ করার অভিযোগ জমা দিয়েছিলেন। সেই অভিযোগ পাওয়ার পরেই এদিন অভিযোগকারী পঞ্চায়েত সদস্যদের সাথে বৈঠক করি। জেলা তৃণমূলের অন্যান্য নেতৃত্বও উপস্থিত ছিলেন বৈঠকে। সেখানেই পঞ্চায়েত প্রধান লায়লা খাতুনকে তৃণমূল কংগ্রেস থেকে সাসপেণ্ড করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ

চন্দ্রযান-২ এর মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার সাবেক রায়গঞ্জ ইউনিভার্সিটি কলেজের প্রাক্তনী

লায়লা খাতুনকে প্রধানের পদ থেকেও সরানো হবে কিনা জানতে চাওয়া হলে জেলা তৃণমূল সভাপতি কানাইয়ালাল বলেন, পঞ্চায়েত প্রধানের পদ থেকে লায়লা খাতুনকে সরানোর ক্ষমতা দলের নেই। সেই কারণে দল থেকেই সাসপেণ্ড করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। পঞ্চায়েতের জয়ী সদস্যরা প্রধানকে পঞ্চায়েত থেকে সরানোর বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন।

দল থেকে কেন সাসপেণ্ড করা হলো বিন্দোল গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান লায়লা খাতুনকে? এই প্রশ্ন জেলা সভাপতি কানাইয়ালাল আগরওয়ালকে করা হলে তিনি বলেন, আমরা চাই তদন্ত নিরপেক্ষ হোক। সেই কারণেই প্রধানকে দল থেকে সাসপেণ্ড করা হয়েছে। তদন্তে যদি প্রমানিত হয়, প্রধান সত্যিই আর্থিক তছরুপ করেছেন তবে প্রশাসন ব্যবস্থা নেবে। আর অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণিত হলে তাঁকে ফের যথাস্থানে ফিরয়ে আনা হবে। বিন্দোল গ্রাম পঞ্চায়েত বিগত তিন মাস থেকে বন্ধ রয়েছে। আমরা চাই সোমবার থেকে স্বাভাবিক গতিতে ফিরুক পঞ্চায়েত।

Related News

Leave a Reply

Back to top button