রায়গঞ্জ

পদ্ম ফুটল রায়গঞ্জ, কালিয়াগঞ্জে, জেলায় সাত আসন তৃণমূলের

কার্যত সাফ বাম ও কংগ্রেস। নিজেদের গর রক্ষার্থে চরম ভাবে ব্যর্থ মোহিত সেনগুপ্ত ও আলি ইমরান রমজ। রাজনীতিতে নেমেই ওভার বাউন্ডারি কৃষ্ণ কল্যানীর। প্রথমবার বিধায়ক নির্বাচিত হলেন গৌতম পাল ও মোসারফ হোসেন।

 

Bengal Live রায়গঞ্জঃ হেভিওয়েট দুই প্রার্থীকে কার্যত পর্যদুস্ত করে রাজনীতির ময়দানে প্রথম নেমেই ওভার বাউন্ডারি বিজেপি প্রার্থী কৃষ্ণ কল্যানীর। গণনার শুরু থেকেই মোহিত সেনগুপ্ত ও কানাইয়ালাল আগরওয়ালকে পেছনে ফেলে এগিয়ে যেতে শুরু করেন কৃষ্ণ কল্যানী। গণনা যতই এগিয়েছে কংগ্রেস ও তৃণমূল কংগ্রেসের দুই প্রার্থী থেকে ব্যবধান ততটাই বেড়েছে তাঁর। এদিন গণনা কেন্দ্রে গরহাজির ছিলেন মোহিত সেনগুপ্ত। গণনা কেন্দ্রে হাজির হলেও ১৫ রাউন্ড কাউন্টিং শেষ হতেই পলিটেকনিক কলেজ থেকে বেড়িয়ে যান তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী কানাইয়ালাল আগরওয়াল। নিজে পরাজিত হলেও উত্তর দিনাজপুরের বাকি সাত আসনে তৃণমূল কংগ্রেসের ফল ভালো হওয়ায় খুশি তিনি বলে জানিয়েছেন কানাইয়ালাল আগরওয়াল। এদিকে চরম বিতর্কের মাঝেই কালিয়াগঞ্জ আসনে জয় লাভ করলেন বিজেপি প্রার্থী সৌমেন রায়।

বরাবর কংগ্রেসের গড় বলেই পরিচিত রায়গঞ্জ ও কালিয়াগঞ্জ। ২০১১ সালে তৃণমূল কংগ্রেসের সাথে জোট করে প্রথমবার বিধায়ক নির্বাচিত হয়েছিলেন মোহিত সেনগুপ্ত। কালিয়াগঞ্জে জয়লাভ করেছিলেন প্রমথ নাথ রায়। ২০১৬ সালেও বামেদের সাথে জোট করে রায়গঞ্জ কেন্দ্র থেকে জয়ী হন মোহিত সেনগুপ্ত। জয় লাভ করেন প্রমথ নাথ রায়। তাঁর মৃত্যুর পর উপনির্বাচনে কালিয়াগঞ্জ আসনে জয় লাভ করে তৃণমূল কংগ্রেস। তবে এদিন কালিয়াগঞ্জ আসনে জয় ছিনিয়ে নেন বিজেপি প্রার্থী সৌমেন রায়। বহু বিতর্কের মাঝেই তাঁর জয় লাভে উচ্ছসিত দলীয় নেতা কর্মীরা।

এদিকে ১০ বছর বিধায়ক থাকার পর এদিন পরাজিত হন চাকুলিয়ার ফরওয়ার্ড ব্লকের বিধায়ক আলি ইমরান রমজ। তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী মিনহাজুল আরফিন আজাদের কাছে পরাজিত হন তিনি।

জয়ের ধারা অব্যাহত রেখেছেন গোয়ালপোখরের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী গোলাম রব্বানী, আবদুল করিম চৌধুরী, হামিদুল রহমান। প্রথমবার নির্বাচনে লড়াই করে জয় লাভ করলেন ইটাহার ও করণদিঘির তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী মোসারফ হোসেন ও গৌতম পাল।

Related News

Leave a Reply

Back to top button