রাজ্য

দুই ক্লাবের মধ্যে সংঘর্ষ, মৃত বিজেপি নেতা

Join our WhatsApp group

স্বামীজী ক্লাব ও নেতাজী ক্লাবের মধ্যে বিসর্জন নিয়ে বিবাদ থেকেই হাতাহাতি। এদিন সেই বচসা চরম মারপিটের আকার ধারণ করলে মৃত্যু হয় একজনের৷

আজকের রাশিফল, বুধবার, ১৮ নভেম্বর

Bengal Live কোচবিহারঃ বিসর্জন ঘিরে বিবাদ। বিজেপির বুথ সম্পাদক কালাচাঁদ কর্মকারকে পিটিয়ে মারার অভিযোগ৷ তুফানগঞ্জ হাসপাতালে নিয়ে গেলে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসক। তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীদের বিরুদ্ধে মারধর করার অভিযোগ বিজেপির। তুফানগঞ্জ থানার নাককাটাগছ গ্রাম পঞ্চায়েতের ঘটনা। কোচবিহারের পুলিশ সুপার কে. কানন জানান, ঘটনার সাথে কোনো রাজনৈতিক যোগ নেই। দুটি ক্লাবের বিবাদের জন্য এই ঘটনা ঘটে। মৃতের পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু হয়েছে। একজন অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বৃষ্টির পূর্বাভাস, পারদ নামবে বঙ্গে

৯/১৯৮ বিজেপির বুথ কমিটির সম্পাদকের দায়িত্বে ছিলেন কালাচাঁদ কর্মকার। জানা গেছে, নেতাজী সংঘের সাথে স্থানীয় আরেকটি ক্লাব স্বামীজী সংঘের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। গত রাতে শিকারপুর গ্রামে প্রতিমা বিসর্জন ছিল। তখনই দুই ক্লাবের মধ্যে হাতাহাতি হয়৷ আজ সকাল থেকে নতুন করে অশান্তি শুরু হয়৷ বিবাদ মেটাতে গেলে আক্রান্ত হন বিজেপির বুথ সম্পাদক কালাচাঁদ কর্মকার। তাঁকে বাড়ির কাছে নেতাজী ক্লাবের সামনে মেরে ফেলে রাখা হয় বলে অভিযোগ। বাঁশ- লাঠি দিয়ে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ মৃতের পরিবারের। আহত অবস্থায় কালাচাঁদ কর্মকারকে পরে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। আহত নেতাজী সংঘের আরেক বিজেপি কর্মী। তিনিও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন৷

কালিয়াগঞ্জ থানার সামনে বিজেপির বিক্ষোভ, বৃহত্তর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি

ঘটনাস্থলে তুফানগঞ্জ থানার প্রচুর পুলিশ। মৃতদেহ ময়না তদন্তের জন্য পাঠিয়েছে পুলিশ৷ বিজেপি জেলা সভানেত্রী মালতী রাভার অভিযোগ, তৃণমূল কংগ্রেসের পায়ের তলার মাটি সরে গেছে বলে তাদের সক্রিয় কর্মীদের পিটিয়ে খুন করা হচ্ছে। যদিও তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি পার্থপ্রতিম রায়ের পালটা দাবি, ক্লাবের বিবাদের জেড়ে মৃত্যুকে রাজনৈতিক রং লাগাচ্ছে বিজেপি।

Related News

Leave a Reply

Back to top button