রাজ্য

মমতার সফরের মাঝেই উত্তরে ক্ষোভ তৃণমূলের, শিলিগুড়িতে নান্টু পাল নির্দল প্রার্থী

দলনেত্রীর উত্তরবঙ্গ সফরের মাঝেই ক্ষোভের আঁচ দার্জিলিঙ জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের অন্দরে। নির্দল প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে লড়াই করার সিদ্ধান্ত নিলেন নান্টু পাল।

 

Bengal Live শিলিগুড়িঃ নির্দল প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে লড়াই করবেন শিলিগুড়ির তৃণমূল কংগ্রেস নেতা নান্টু পাল। ওমপ্রকাশ মিশ্রের নাম প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই ক্ষোভ শোনা যাচ্ছিল দার্জিলিঙ জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের অন্দরে। বহিরাগত প্রার্থী নিয়েই সমস্যা তৈরি হয়েছিল দলীয় নেতৃত্বের একাংশের মধ্যে। সেই তালিকায় ছিলেন দীর্ঘদিনের তৃণমূল কংগ্রেস নেতা নান্টু পাল। মুখ্যমন্ত্রীর উত্তরবঙ্গ সফর চলাকালীনই নিজের ক্ষোভের কথা জানিয়ে দিলেন নান্টু পাল। দলবদল না করলেও নির্দল প্রার্থী হিসেবে শিলিগুড়ি বিধানসভা কেন্দ্রে লড়াই করবেন বলে জানিয়ে দিয়েছেন তিনি।

নান্টু পাল শিলিগুড়ি পুর কর্পোরেশনের ১১ নম্বর ওয়ার্ডের বিদায়ী কাউন্সিলর হওয়ার পাশাপাশি শিলিগুড়ি জলপাইগুড়ি উন্নয়ন পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান পদেও রয়েছেন। রবিবার সকালে তৃণমূল কংগ্রেসের এক রাজ্য নেতার সাথে বৈঠল করেন নান্টু পাল। সেখানেই তিনি তাঁর ক্ষোভের কথা জানান। সূত্রের খবর, রাজ্য নেতৃত্বের পক্ষ থেকে দলবদল যেন না করেন নান্টু পাল সেই বার্তা দেওয়া হয়েছে। বৈঠক শেষে এদিন নান্টু পাল জানান, নির্দল প্রার্থী হিসেবে শিলিগুড়ি বিধানসভা আসনে লড়াই করবেন তিনি।৷

প্রসঙ্গত, ২০১১ সালে অশোক ভট্টাচার্যকে হারিয়ে শিলিগুড়ির বিধায়ক হন তৃণমূল কংগ্রেসের চিকিৎসক রূদ্রনাথ ভট্টাচার্য। এরপর ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে রুদ্রনাথ ভট্টাচার্যের বদলে প্রার্থী করা হয় ভারতীয় ফুটবল আইকন বাইচুং ভুটিয়াকে। সেইবার ফের একবার শিলিগুড়ির বিধায়ক হিসেবে নির্বাচিত হন অশোক ভট্টাচার্য। বহিরাগত প্রার্থী হওয়ার কারণেই ২০১৬ সালে শিলিগুড়ি আসনটিতে পরাজিত হতে হয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেসকে। এমনটাই দাবি তৃণমূল নেতৃত্বের। এরপর ২০২১ সালে ফের একবার বহিরাগত প্রার্থী দাঁড় করানোতে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে নেতা কর্মীদের মধ্যে। বিক্ষুব্ধ নেতৃত্বের দাবি, ভূমিপুত্র প্রার্থী ছাড়া এই বিধানসভা এলাকায় জয় পাওয়া অসম্ভব।

Related News

Leave a Reply

Back to top button