রাজ্য

বৃষ্টি কমলেও নামেনি জল, যাতায়াত চলছে ছোট নৌকায়

শনিবার বিকেলের পর থেকে এখনও বৃষ্টি হয়নি। তবুও জল নামেনি এখনও। যাতায়াতের সুবিধার জন্য ছোট নৌকার ব্যবহার করছেন বাসিন্দারা৷

Bengal Live ডেস্কঃ শনিবার বিকেলের পর থেকে বৃষ্টি না হলেও এখনও জলমগ্ন রায়গঞ্জ ও মালদার ইংরেজবাজার পুরসভা এলাকার বেশ কয়েকটি ওয়ার্ড। রায়গঞ্জের অশোকপল্লী, রবীন্দ্রপল্লী সহ হাইরোড সংলগ্ন এলাকায় এখনও জমে রয়েছে জল। এদিকে মালদার ইংরেজবাজার পুরসভা এলাকার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের বেশ কয়েকটি পাড়ায় এখনও জল জমে রয়েছে বলে অভিযোগ বাসিন্দাদের৷ যাতায়াত ব্যবস্থার জন্য ছোট নৌকা পর্যন্ত নামানো হয়েছে মালদার জলমগ্ন এলাকাগুলিতে।

weather report of malda

জলমগ্ন কর্ণজোড়া সরকারি আবাসন চত্বর, পথ অবরোধ বাসিন্দাদের

ইংরেজবাজার পুরসভার ৩নং ওয়ার্ডের নেতাজি পার্ক, নেতাজী কলোনি সহ বিভিন্ন এলাকা জলমগ্ন। যাতায়াতের জন্য তাদের একমাত্র সম্বল ছোট নৌকা। একদিকে করোনা আবহ অন্যদিকে ডেঙ্গু, ম্যালেরিয়ার আতঙ্কে ভুগছেন এলাকার মানুষ। বিষাক্ত সাপের উপদ্রব বেড়েছে এলাকায় বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। স্থানীয়দের অভিযোগ বেআইনিভাবে বিল ভরাটের কারণে নরক যন্ত্রনায় ভুগছেন তারা।শহরের সমস্ত জল পড়ছে বিলে কিন্তু সেই জল নিকাশের কোন ব্যবস্থা নেই। পুরো প্রশাসনকে জানিয়েও কোনও সুরাহা হয়নি।

বিহারের নিম্নচাপে ফের দুর্যোগের ঘনঘটা, আরও ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা উত্তরবঙ্গে

বৃষ্টির জমা জল পেরিয়ে বিভিন্ন জায়গায় যাতায়াত করতে হচ্ছে এলাকাবাসীদের। এর ফলে চর্মরোগ এবং ডেঙ্গু, ম্যালেরিয়া রোগের আতঙ্কে ভুগছেন এলাকার মানুষ। এর পাশাপাশি বিষধর সাপের আতঙ্ক তৈরি হয়েছে এলাকাবাসীদের মধ্যে। এই বিষয়ে ইংরেজবাজার পুরসভার প্রশাসক নিহার রঞ্জন ঘোষ বলেন,জল নিকশির জন্য একটি প্রজেক্ট তৈরী করা হয়েছে।মালদা সেচ দপ্তরকে ড্রেনেজ প্রকল্পের কাজ করার কথা বলা হয়েছে।

heavy rain in maldah and raiganj

এদিকে শনিবার বিকেলের পর এখনও বৃষ্টি না হলেও জলে থৈথৈ অবস্থা রায়গঞ্জ পুরসভার চারটি ওয়ার্ডে। বৃষ্টির জল আটকে জলবন্দী হয়ে চরম দুর্ভোগে শহরের বাসিন্দারা। বেহাল জল নিকাশি ব্যবস্থাকেই দায়ী করেছেন এলাকার মানুষ।
রায়গঞ্জ শহরের অশোকপল্লী, রবীন্দ্রপল্লী, পূর্ব নেতাজীপল্লী ও হাইরোড সংলগ্ন এলাকায় এখনও জল সরেনি বলে অভিযোগ। চার-পাঁচ দিন ধরে এলাকায় জল দাঁড়িয়ে থাকায় নানান রোগ ব্যাধির আশঙ্কা করছেন বাসিন্দার৷ নোংরা জল পেরিয়ে সাধারণ মানুষ যাতায়াত করতে বাধ্য হচ্ছেন বলে স্থানীয়দের দাবি। পুরসভা কর্তৃপক্ষের দাবি অতি বৃষ্টির কারনেই এলাকাগুলিতে জল জমে গিয়েছে। আজ থেকেই এলাকায় জল নামা শুরু হয়েছে।

Related News

Leave a Reply

Back to top button