রাজ্য

চা বানিয়ে খাওয়াবেন স্যোশাল মিডিয়ার ভাইরাল চা-কাকু

এবার চা বানিয়ে খাওয়াবেন স্যোশাল মিডিয়ার ভাইরাল চা-কাকু, দোকানের প্রচার সারলেন ফেসবুকেই।

স্যোশাল মিডিয়ার ভাইরাল চা-কাকু স্বয়ং শুরু করলেন চায়ের দোকান।গতবছর’আমরা কি চা খাব না, খাব না আমরা চা’ এটুকু বলেই ভাইরাল হওয়া মৃদুল দেব, খুব অল্প সময়ের মধ্যেই জনপ্রিয় হয়েছিলেন ‘চা-কাকু’ নামে। এবার চা বানিয়ে খাওয়াচ্ছেন চা-কাকু নিজেই। কলকাতার শ্রীকলোনি বাজারের সামনে চা, বিস্কুট, চিপস, পান মশলা সাজিয়ে শুরু করলেন তাঁর নতুন দোকান।

ত্বক থেকে চুল সবকিছুর যত্নে সবেদা, জানুন বিশদে

করোনা পর্বের একদম শুরুর দিকে দেশে সংক্রমন রুখতে জনতা কারফিউ এর নির্দেশ দিয়েছিলেন প্রধান মন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কিন্তু তার জন্য কি চায়ের নেশা আটকানো সম্ভব! বিধি নিষেধ না মেনেই পাড়ার মোড়ের চায়ের দোকানে চা খেতে গিয়েছিলেন মৃদুল দেব। কারফিউ চলা সত্বেও চা খেতে বেড়োনো নিয়ে প্রশ্ন করা হলে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘আমরা কি চা খাব না, খাব না আমরা চা’? আর সেই নির্ভেজাল প্রশ্নই ভাইরাল হয়েছিল নেট দুনিয়ায়।

যেহেতু তাঁর জনপ্রিয়তার মুল মাধ্যম ফেসবুক তাই নিজের দোকানের প্রচারটাও তিনি সারলেন ফেসবুকেই। গত ২০ জুলাই তাঁর এই নতুন উদ্যোগের কথা ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমেই জানিয়েছেন চা-কাকু। তিনি লেখেন, ‘আমার নতুন দোকান। ছোট করে শুরু করলাম। যারা যারা আমার দোকানের চা খেতে চাও চলে এসো।’ প্রায় ঝড়ের গতিতে ভাইরাল হয়ে যায় পোস্টটি। পাশাপাশি অনেকে তাঁর দোকানের ঠিকানা জানতে চাইলে দোকানের লোকেশান সংক্রান্ত একটি ভিডিয়ো ইউটিউবে পোস্ট করেছেন মৃদুল দেবের ছেলে। ইতিমধ্যেই ভিডিয়ো ও পোস্টের কমেন্টে অনেকেই চা খেতে যাবেন বলে জানিয়েছেন। কলকাতার অনেকেই তাঁর দোকানে যেতে শুরু করেছেন, এমনকি কোচবিহার থেকেও একজন চা খেতে আসবেন বলে জানিয়েছেন কমেন্টে।

টাইপিং স্কুল থেকে চায়ের দোকান, বদলে গিয়েছে বংশী দার জীবন সংগ্রাম

Leave a Reply

Back to top button