ইসলামপুর

অভিযোগ প্রমাণ না করলে মানহানি মামলা, প্রধান শিক্ষিকাকে চিঠি চোপড়া প্রধানের

অভিযোগ প্রমাণ না করলে মানহানি মামলা, প্রধান শিক্ষিকাকে চিঠি চোপড়া প্রধানের

Bengal Live চোপড়াঃ পঞ্চায়েত প্রধানের বিরুদ্ধে বিদ্যালয়ের উন্নয়নের টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ তোলার দুইদিনের মাথায় চোপড়া গার্লস হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষিকাকে অভিযোগ প্রমান করার জন্য চিঠি পাঠালো চোপড়া গ্রাম পঞ্চায়েত। সাত দিনের মধ্যে অভিযোগ প্রমান করতে না পারলে প্রধান শিক্ষিকার বিরুদ্ধে মানহানি মামলা করার হুঁশিয়ারি দেওয়া হলো গ্রাম পঞ্চায়েতের পক্ষ থেকে।

বুধবার কন্যাশ্রী দিবসের অনুষ্ঠান বয়কট করে চোপড়া গার্লস হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষিকা মল্লিকা সাহা অভিযোগ করেন, আমি একটি মেল মারফত জানতে পেরেছি, আমাদের স্কুলে মেয়েদের সাইকেল স্ট্যাণ্ড তৈরির জন্য ১১ লক্ষ টাকা এসেছিল। ২০১৭–১৮ আর্থিক বর্ষে ওই টাকা বরাদ্দ করা হয়েছিল। কিন্তু তা দিয়ে কোনও কাজ না করে পুরো টাকা আত্মসাৎ করেছেন স্থানীয় পঞ্চায়েত প্রধান। এছাড়া স্কুলের সামগ্রিক পরিকাঠামো উন্নয়নের ব্যাপারেও সরকার বা প্রশাসন একেবারেই উদাসীন। বিধায়কের কাছ থেকে আমাদের স্কুল আজ পর্যন্ত কোনও টাকা পায়নি। মেয়েদের শৌচাগার নেই, পানীয় জলের ব্যবস্থা নেই। এসবেরই প্রতিবাদে আমরা আজ কন্যাশ্রী দিবস বয়কট করেছি।”

চোপড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান কারান মার্ডি এদিন প্রধান শিক্ষিকার সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছিল। কিন্তু টাকা বরাদ্দ না হওয়ায় কাজের টেন্ডার করা হয়নি। কাজও করা হয়নি। ফলে প্রধান শিক্ষিকা টাকা আত্মসাৎ করার যে অভিযোগ তুলেছেন তা পুরোপুরি ভুল। সাতদিনের মধ্যে অভিযোগ প্রমান করার জন্য প্রধান শিক্ষিকাকে চিঠি মারফত জানানো হয়েছে গ্রাম পঞ্চায়েতের পক্ষ থেকে।

অভিযোগ প্রমাণ করতে না পারলে মানহানি মামলা করার হুঁশিয়ারিও দেন পঞ্চায়েত প্রধান কারান মার্ডি।

Tags

Leave a Reply

Back to top button