ইসলামপুর

 ‘জয় শ্রী রাম’ না বলায় টিএমসি কর্মীদের মারধর করার অভিযোগ, অস্বীকার বিজেপির

‘জয় শ্রী রাম’ না বলায় টিএমসি কর্মীদের মারধর করার অভিযোগ, অস্বীকার বিজেপির

Bengal Live রায়গঞ্জঃ তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীদের জোর করে জয় শ্রীরাম বলানোর পাশাপাশি ব্যাপক মারধর করার অভিযোগ উঠল বিজেপির বিরুদ্ধে। ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে উত্তর দিনাজপুর জেলার করণদিঘি থানার সিঙ্গারদহ গ্রামে। আহত পাঁচজন তৃণমূল কর্মীকে প্রথমে করণদিঘি গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে আহতদের মধ্যে দুজনের অবস্থার অবনতি হলে রায়গঞ্জ সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে করণদিঘি থানার পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, করণদিঘির পূর্ব ফতেপুরের বাসিন্দা তৃণমূল কর্মী মহম্মদ মোক্তার, দিলবার হোসেন সহ পাঁচজন এলাকার একটি পুকুরে মাছ ধরছিলেন। অভিযোগ, সেই সময় স্থানীয় কিছু বিজেপি কর্মী সমর্থক তাঁদের গরু চুরি করার অপবাদ দিয়ে ব্যাপক মারধর করে। জোড় করে জয় শ্রী রাম বলতে বাধ্য করা হয়। আপত্তি জানালে ব্যাপক মারধর করার অভিযোগও ওঠে বিজেপির কর্মী সমর্থকদের বিরুদ্ধে।

ঘটনার খবর পেয়ে স্থানীয় বাসিন্দারা এলাকায় জড়ো হতে থাকলে বিজেপির কর্মী সমর্থকেরা পালিয়ে যায় বলে জানা গেছে। এরপরেও আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। রায়গঞ্জ সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মহম্মদ মোক্তার অভিযোগ করে বলেন, পুকুরে আমরা মাছ ধরছিলাম। সেই সময় কিছু বিজেপি কর্মী সমর্থক এসে গরু চুরি করার অপবাদ দেয়। জোর করে জয় শ্রী রাম বলায়। আপত্তি জানালে ব্যাপক মারধর করে।

অভিযোগ অস্বীকার করে পালটা বিজেপি নেতা বাসুদেব সরকারের দাবী, তৃণমূল বিজেপির ভূত দেখছে। নিজেদের দোষ ঢাকতে বিজেপির উপর দোষ চাপানো হচ্ছে। গরু চুরি করাকে কেন্দ্র করে গন্ডোগোল হয়েছে। ভাগাভাগি নিয়ে নিজেরা ঝামেলা করে বিজেপি উপর দোষ চাপাচ্ছে। এই ঘটনার সাথে বিজেপির কোনও যোগাযোগ নেই।

পুলিশ সুপার সুমিত কুমার বলেন, স্থানীয় দুটি গোষ্ঠীর মধ্যে একটা গণ্ডগোল হয়েছে। তবে জয় শ্রীরাম স্লোগান নিয়ে কোনও গোলমাল হয়নি। ওটা মিথ্যা ভাবে রটানো হচ্ছে।

Tags

Leave a Reply

Back to top button
Close