রায়গঞ্জ

জেলা সভাপতির অপসারণের দাবিতে রায়গঞ্জে বিক্ষোভ বিজেপি কর্মীদের

উত্তর দিনাজপুর জেলা বিজেপিতে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে। বিজেপির জেলা সভাপতির অপসারণের দাবিতে জেলা পার্টি অফিসের সামনেই বিক্ষোভ দলীয় কর্মীদের।

 

Bengal Live রায়গঞ্জঃ উত্তর দিনাজপুর জেলা বিজেপি সভাপতির বিরুদ্ধে বিস্ফোরক সব অভিযোগ এনে অপসারণের দাবিতে সরব বিজেপির কর্মী সমর্থকেরা। বুধবার রায়গঞ্জে অবস্থিত উত্তর দিনাজপুর জেলা বিজেপির সদর দপ্তরের সামনে হাতে প্ল্যাকার্ড নিয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন বিজেপি নেতা কর্মীরা। যোগ্যদের বাদ দিয়ে অযোগ্যদের জেলা কমিটিতে জায়গা দেওয়ার অভিযোগের পাশাপাশি টাকার বিনিময়ে বিজেপির দখলে থাকা গ্রাম পঞ্চায়েত তৃণমূল কংগ্রেসের হাতে তুলে দেওয়ার অভিযোগও এদিন আনা হয়েছে।  ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য জেলা বিজেপির অন্দরে।

uttar dinajpur bjp

রাজ্য বিধানসভা নির্বাচনের দিন কয়েক আগে আচমকাই উত্তর দিনাজপুর জেলা বিজেপি সভাপতি পদে বদল আনা হয়। বিশ্বজিৎ লাহিড়ীকে সরিয়ে জেলা বিজেপির সভাপতি করা হয় বাসুদেব সরকারকে। বিজেপি সূত্রে জানা গেছে, সাংসদ দেবশ্রী চৌধুরী ঘনিষ্ঠ বলেই দলীয় স্তরে পরিচিত বাসুদেব সরকার। দলীয় কর্মীদের একাংশের মতে, তৎকালীন সভাপতি বিশ্বজিৎ লাহিড়ীর সাথে খুব একটা সু সম্পর্ক ছিল না দেবশ্রী চৌধুরীর। সেই কারণেই আচমকা সভাপতি পদে রদবদল ঘটানো হয়। যদিও এই বিষয়ে সরাসরি কেউ কিছু বলতে চাননি।

uttar dinajpur bjp

এদিকে বিগত কয়েকদিন আগেই বাসুদেব সরকার সাংবাদিক বৈঠক করে নতুন জেলা কমিটি ঘোষণা করেন। তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে বিধানসভা নির্বাচনের আগে তৃণমূল কংগ্রেস থেকে বিজেপিতে যোগ দেওয়া কালিয়াগঞ্জের কার্তিক পালের নাম দেখা যায় জেলা কমিটিতে। একইভাবে চোপড়ার প্রাক্তন ব্লক কংগ্রেস সভাপতি অশোক রায়কেও রাখা হয় জেলা কমিটিতে। এরপরেই ক্রমশ ক্ষোভ ছড়াচ্ছিল জেলা বিজেপি কর্মীদের একাংশের মধ্যে। যোগ্য, অযোগ্য প্রসঙ্গ উঠে আসছিল নানান সময়।

uttar dinajpur bjp

সেই ক্ষোভেরই বিস্ফোরণ হলো এদিন বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। এদিন বিক্ষোবরত বিজেপি কর্মীদের অন্যতম তথা জেলা কমিটির সদস্য বলরাম চক্রবর্তী বলেন, বিধানসভা নির্বাচনের আগে অবৈধ ভাবে জেলা সভাপতি করা হয়েছিল বাসুদেব সরকারকে। জেলা কমিটিতে এবার অযোগ্য নেতৃত্বদের স্থান দেওয়া হয়েছে। একেরপর এক গ্রাম পঞ্চায়েত হাতছাড়া হচ্ছে তারপরেও কোনও উদ্যোগ নিচ্ছে না জেলা সভাপতি। দলীয় কার্যালয় দিনের পর দিন শ্মশানে পরিণত হচ্ছে। এইসব কিছুর প্রতিবাদে আমরা আন্দোলনে নামতে বাধ্য হয়েছি। দশদিনের মধ্যে জেলা সভাপতি বদল না হলে দলীয় কার্যলয়ে রিলে অনশনে বসার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন বলরাম চক্রবর্তী।

এই বিষয়ে বিজেপির উত্তর দিনাজপুর জেলা সভাপতি বাসুদেব সরকার বলেন, কয়েকজন অপরিচিত ব্যক্তিকে এনে কার্যলয়ে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন বলরাম সরকার। উঁনাকে বেশ কয়েকদিন আগেই শোকজ করা হয়েছে। রাজ্য সভাপতির সাথে অশালীন আচরণ করার জন্য শোকজ করা হয়েছে তাঁকে। আমার ধারণা সেই ক্ষোভ থেকেই এদিন বিক্ষোভ দেখিয়েছেন তিনি।

Related News

Leave a Reply

Back to top button