রায়গঞ্জ

পুলিশের মারে মাথা ফাটল ইটাহার হাসপাতালের চিকিৎসকের, ক্ষোভ স্বাস্থ্য মহলে

Bengal Live ইটাহারঃ রাস্তায় সাইড না দেওয়াকে কেন্দ্র করে বিতর্কের জেরে পুলিশের হাতে প্রহৃত হলেন ইটাহার হাসপাতালের চিকিৎসক অনির্বান সেনগুপ্ত ও ফার্মাসিস্ট দীপঙ্কর রায়।

ঘটনা রায়গঞ্জ থানার জামবাড়ি এলাকায় ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কে। শুক্রবার এই ঘটনাকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ায় জামবাড়ি এলাকায়। পুলিশের মারে ওই চিকিৎসকের মাথা ফেটেছে। পাশাপাশি আহত হয়েছেন ফার্মাসিস্টও। ঘটনার পর তাঁরা রায়গঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন।

আহত অনির্বানবাবু ইটাহার হাসপাতালের দন্ত চিকিৎসক। তিনি থাকেন রায়গঞ্জে। এদিন রায়গঞ্জ থেকে হাসপাতালের ফার্মাসিস্ট দীপঙ্কর রায়ের মোটর বাইকে চেপে ইটাহার হাসপাতালে তাঁর ডিউটিতে আসছিলেন। বাইক চালাচ্ছিলেন দীপঙ্করবাবুই। জাতীয় সড়কে রায়গঞ্জ থানার জামবাড়ির কাছাকাছি স্থানে আসতেই পেছন থেকে তাঁরা একটি গাড়ির হর্ন শুনতে পান। অনির্বানবাবু বলেন, “পেছনে গাড়ির হর্ন শুনে আমরা সাইড দিয়ে দিই এবং রাস্তার একেবারে এক প্রান্ত দিয়ে চলতে শুরু করি। এমন সময় পেছনে থাকা পুলিশ বোঝাই ওই বাসটি আমাদেরকে ওভারটেক করে সামনে এসে রাস্তা ব্লক করে দাঁড়ায়। সঙ্গে সঙ্গে কয়েকজন খাকি উর্দিধারী পুলিশকর্মী বাস থেকে নেমে আমাদের উপর চড়াও হয়। বিনা প্ররোচনায় তারা আমাদের ফুজনকেই মারতে শুরু করে। আমাকে ধাক্কা দিয়ে রাস্তায় ফেলে দেয়। পাশাপাশি অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে।”

মারধরের কারণ জানতে বারবার জিজ্ঞেস করা সত্ত্বেও ওই পুলিশ কর্মীরা কোনও সদুত্তর না দিয়ে বেধড়ক পেটাতে থাকে বলে অভিযোগ। অনির্বানবাবু বলেন, “আমি নিজের চিকিৎসক পরিচয় দেওয়া সত্ত্বেও ওরা কোনও কথা শুনতে চায়নি। উলটে অশ্লীল গালাগালি করেছে। শেষ পর্যন্ত স্থানীয় কিছু গ্রামবাসী জরো হয়ে যাওয়ায় ওরা বাস নিয়ে চলে যায়।”

অভিযুক্ত পুলিশ কর্মীরা কোথায় কর্মরত বা তাঁরা কোথা থেকে কোথায় যাচ্ছিলেন তা জানা যায়নি। তবে গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

Tags

Leave a Reply

Back to top button
Close