বেঙ্গল লাইভ Special

কেন পালন করা হয় বন্ধুত্ব দিবস? জেনে নিন এই বিশেষ দিনটির ইতিহাস

আগস্ট মাসের প্রথম রোববার বিশ্ব বন্ধুত্ব দিবস উদযাপনে এখন মেতে উঠি কমবেশি আমরা সবাই। কোথায় এর উৎপত্তি আর কীভাবেই বা তা ছড়িয়ে পড়ল বিশ্বজুড়ে!

 

Bengal Live ডেস্কঃ ডক্টর এপিজে আবদুল কালাম বলেছেন, একটি ভালো বই একশত বন্ধুর সমান কিন্তু একজন ভালো বন্ধু একটি পুরো লাইব্রেরির সমান। আমাদের সকলের জীবনেই বন্ধুত্বের গুরুত্ব অপরিসীম। বলতে গেলে বছরের ৩৬৫ দিনই বন্ধুদের জন্য হলেও নির্দিষ্ট একটা দিনে তা বিশেষভাবে উদযাপনের দাবি রাখে। আর তাই প্রতিবছর অগাস্ট মাসের প্রথম রবিবার ভারতে পালিত হয় আন্তর্জাতিক বন্ধুত্ব দিবস।

এবার একটু জেনে নেওয়া যাক এই বন্ধুত্ব দিবসের ইতিহাস, যদিও সঠিকভাবে কবে বা কার উদ্যোগে এই বন্ধুত্ব দিবসের সূচনা হয়েছিল তা নিয়ে অনেক মতপার্থক্য রয়েছে। ‌ শোনা যায় আমেরিকার সরকার হাজার ১৯৩৫ সালে এক ব্যক্তিকে হত্যা করে, ছিল আগস্ট মাসের প্রথম শনিবার। তার প্রতিবাদে পরের দিন তার এক বন্ধু আত্মহত্যা করে। সেই দিনটি ছিল আগস্ট মাসের প্রথম রবিবার। দিনটিকে আমেরিকান কংগ্রেস বন্ধু দিবস বলে ঘোষণা করেন। আবার অনেকে মনে করেনএই বন্ধুত্ব দিবস প্রথম পালিত হয় ১৯৫৮ সালে প্যারাগুয়েতে। এই দিনটির সূচনা করেন জয়েস হল, যিনি ছিলেন হলমার্ক কার্ডের জনক। পরবর্তীতে ২০১১ সালে জাতিসংঘ ৩০ শে জুলাই বিশ্ব বন্ধুত্ব দিবস হিসেবে ঘোষণা করে। তারপর থেকে বিশ্বের বহু দেশ এই ৩০ শে জুলাই কেই বন্ধুত্ব দিবস হিসেবে পালন করে আসছে, আবার কোন কোন দেশে আগস্ট মাসের প্রথম রবিবার মান্যতা পায় বন্ধুত্ব দিবসের।

বন্ধুত্ব দিবসের ইতিহাস যাই হোক না কেন প্রাচীনকাল থেকে শুরু করে আজ অবধি মানুষের জীবনের সুর তাল ছন্দ সব এক সুতোতে মিলিয়ে দেয় বন্ধুরাই। তাই এই একবিংশ শতাব্দীতে দাঁড়িয়ে প্রতিদিনের ব্যস্ততার ফাঁকে যদি বিশেষ একটা দিনে পুরনো বন্ধুত্বগুলোকে ঝালিয়ে নেওয়া যায় আরো একবার তাহলে মন্দ হয় না তাই না!

Leave a Reply

Back to top button