বেঙ্গল লাইভ Special
Trending

‘ওয়ার্ল্ড রোজ্ ডে’: ক্যান্সার যোদ্ধাদের কুর্নিশ জানানোর দিন

আদতে আজকের দিনের সাথে সেরকম কোনো কেনো সংযোগ নেই গোলাপ ফুলের। তবু কেনো এই দিনটির নাম গোলাপ দিবস, আর কিই বা এর তাৎপর্য! জেনে নেওয়া যাক আজকের দিনের ইতিহাস –

 

Bengal Live ডেস্কঃ আজ বিশ্ব গোলাপ দিবস বা ‘ওয়ার্ল্ড রোজ্ ডে’। তবে ফেব্রুয়ারি মাসের ভ্যালেন্টাইন সপ্তাহের প্রথম দিনের রোজ্ ডের সঙ্গে আজকের দিনের পার্থক্য আছে বিস্তর। আজকের দিন শুধুই কাছের মানুষকে গোলাপ ফুল উপহার দিয়ে ভালোবাসা জানানোর জন্য নয়। আদতে এই দিনটির সঙ্গে গোলাপ ফুলের সেরকম কোনো সংযোগই নেই। তাহলে কেনো এই দিনটির নাম গোলাপ দিবস, আর কিই বা এর ইতিহাস ! আসুন জেনে নেওয়া যাক আজকের দিনটির তাৎপর্য-

২২ সেপ্টেম্বর- ওয়ার্ল্ড রোজ্ ডেঃ

সারা বিশ্ব জুড়ে প্রতি বছর ২২ সেপ্টেম্বর দিনটি গোলাপ দিবস বা ‘রোজ্ ডে’ হিসেবে পালন করা হয়। এই দিনটি আসলে উৎসর্গীকৃত মারণরোগ কর্কটে আক্রান্তদের জন্য। যারা প্রত্যহ লড়াই করে চলেছে ক্যান্সারের সাথে তাদের জীবন এক টুকরো আনন্দ এনে দেওয়ার জন্যই মূলত পালিত হয় এই দিনটি। এই বিশেষ দিনটি উপলক্ষ্যে ক্যান্সার রোগীদের প্রদান করা হয় ফুল, কার্ড এবং উপহার । কোথাও কোথাও ক্যান্সার আক্রান্তদের মনোবল বাড়াতে আয়োজন করা হয় বিশেষ অনুষ্ঠানেরও।

ক্লান্ত অথচ ঘুমোতে পারছেন না, ভুগছেন কি অনিদ্রায়, জানুন সহজে ঘুম আসার পাঁচটি উপায়

কেনো ক্যান্সার যোদ্ধাদের জন্য এই ওয়ার্ল্ড রোজ্ ডেঃ

কানাডার অধিবাসী ছোট্ট মেয়েটির নাম ছিল মেলিন্ডা রোজ। মাত্র ১২ বছর বয়সে সে আক্রান্ত হয় অ্যাসকিনস্ টিউমার নামে এক বিরল ব্লাড ক্যান্সারে। আর্থিক স্বচ্ছলতা এবং উন্নত স্বাস্থ্য পরিষেবা কোনো কিছুর তোয়াক্কা না করে মেলিন্ডার শরীরে ছড়িয়ে পড়তে থাকে মারণ ব্যাধি । শারীরিক ভাবে ভেঙে পড়লেও মানসিক ভাবে হার মানেনি ছোট্ট মেয়েটি।

আশ্চর্য দৃঢ়তা এবং সাহস সঞ্চয় করে সে মন দিল লেখায়। মাত্র ১৩ বছর বয়সে সে একের পর এক লিখে চলে গল্প, কবিতা, চিঠিপত্র এবং তার দৈনন্দিন ডায়েরি, যার বেশীরভাগটাই ক্যান্সার যোদ্ধাদের উদ্দেশ্যে। চিঠিপত্র, মেইল এবং মেসেজের মাধ্যমে সে তার পরিচিত-অপরিচিত, কাছাকাছি বা দূরের সমস্ত ক্যান্সার ক্রুসেডারদের মনোবল বৃদ্ধি করে, জানিয়ে দেয় সে তাদের পাশে আছে। মেলিন্ডা এই লড়াই চালিয়ে নিয়ে গিয়েছিল তারপর আরও ৩ বছর। ক্ষীণ শরীরে চরম যন্ত্রণাময়, কষ্টদায়ক জীবনযাপনেও অসংখ্য ক্যান্সার আক্রান্তদের শক্তি জুগিয়ে মেলিন্ডা মাত্র ১৬ বছর বয়সে পাড়ি দেয় না ফেরার দেশে।

ছকে বাঁধা জীবনে বানিয়ে ফেলুন যোগ ব্যায়ামের রুটিন। জেনে নিন কোনটা কখন করবেন আর কোনটা করবেন না

এখান থেকেই শুরু ‘ওয়ার্ল্ড রোজ্ ডে’রঃ

মেলিন্ডার পরিবার সন্তানকে হারিয়ে ফেললেও, সন্তানের সমাজের প্রতি দায়বদ্ধতাকে এগিয়ে নিয়ে চললেন সামনে। তাঁরা প্রতিবছর মেলিন্ডার জন্মদিন অর্থাৎ ২২ সেপ্টেম্বর এলাকার ক্যান্সার রোগীদের আরোগ্য ও শুভকামনায় তাদের হাতে তুলে দিতে লাগলেন হাতে তৈরি কার্ড সহ গোলাপ। তাঁরা মেয়ের স্মরণে ক্যান্সার আক্রান্তদের মনোবল বৃদ্ধি করার এই দিনটির নাম রাখলেন মেয়ে রোজ্ এর নামে।

ক্রমশঃ তাঁদের এই অভিনব মানবিকতার নজির ছড়িয়ে পড়ল সারা বিশ্বে। ২২ সেপ্টেম্বর দিনটি পালিত হতে লাগলো ক্যান্সার রোগীদের শুভকামনায় বিশ্ব গোলাপ দিবস হিসেবে ।

তাই এই বিশেষ দিনটি বিশেষভাবে উদযাপনের। আপনার পরিচত কেউ এই মারণ ব্যাধির শিকার হলে আজ তাঁকে জানিয়ে দিন পাশে থাকার বার্তা। তবে পাশাপাশি এও মনে রাখা দরকার শুধু এই একটা দিনই নয়, বছরের প্রতিটি দিনই ক্যান্সার রোগীদের পাশে থেকে তাঁদের মনোবল, সাহস বাড়ানোর, তাঁদের শারীরিক কষ্ট লাঘব করতে না পারলেও, মানসিক আনন্দে মাতোয়ারা করে রাখার। তাহলে হয়তো এই কঠিন যুদ্ধ আরও একটু সহজে জিতে নিতে পারবেন তাঁরা।

Leave a Reply

Back to top button