রায়গঞ্জ

হেমতাবাদে অগ্নিদগ্ধ হয়ে মৃত্যু একই পরিবারের পাঁচজনের

একই পরিবারের পাঁচ সদস্যের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে শোকের ছায়া হেমতাবাদে। ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য। তদন্তে নামল পুলিশ।

 

 

Bengal Live হেমতাবাদঃ অগ্নিদগ্ধ হয়ে একই পরিবারের পাঁচ সদস্যের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে শোকের ছায়া নেমে এলো হেমতাবাদে। শনিবার ভোর রাতে ঘটনাটি ঘটেছে হেমতাবাদ থানার ভরতপুর গ্রামে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মৃতদের নাম রাম ভৌমিক, শঙ্করী ভৌমিক, পরণা ভৌমিক, সরস্বতী ভৌমিক ও রানী ভৌমিক। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে হেমতাবাদ থানার পুলিশ। মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। এদিকে একই পরিবারের পাঁচ সদস্যের অগ্নিদগ্ধ হয়ে মৃত্যুর ঘটনার কারণ খুঁজতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, মধ্যরাতে আচমকাই আগুন জ্বলতে থাকে রাম ভৌমিকের বাড়িতে। স্থানীয় বাসিন্দারা দেখতে পেয়েই ছুটে আসে ঘটনাস্থলে। পাঁচ সদস্যের মধ্যে চারজনেরই ঘটনাস্থলে মৃত্যু হয়। স্থানীয় বাসিন্দারা অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় রাম ভৌমিকের বড় মেয়েকে উদ্ধার করে রায়গঞ্জ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। রাম ভৌমিকের ভাই সুরেন্দ্র নাথ ভৌমিক জানিয়েছেন, চিকিৎসাধীন অবস্থায় রানী ভৌমিকেরও মৃত্যু হয়েছে। তবে আগুন লাগার কারণ নিয়ে ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দাদের ধারণা,পেশায় ভুটভুটি চালক রাম ভৌমিক, আংশিক লকডাউনের জেরে কর্মহীন হয়ে পরেই পরিবার নিয়ে আত্মহত্যা করার পথ বেছে নিয়েছেন। যদিও আর্থিক কোনও সমস্যা ছিল কিনা তা জানা নেই বলে দাবি করেছেন রাম ভৌমিকের ভাই। সুরেন্দ্রনাথ ভৌমিকের দাবি, শুক্রবার বিকেলেই বাড়িতে এসেছিলেন রাম। কথাও হয় স্বাভাবিক। কী কারণে এমনটা ঘটল কিছুই বুঝতে পারছি না। হেমতাবাদ থানার পুলিশ ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত শুরু করেছে।

Related News

Leave a Reply

Back to top button