রায়গঞ্জ

গোয়ালপোখরে মন্ত্রীর তালুকে ভাঙন তৃণমূলে, হেমতাবাদে টিএমসিপি ভেঙে যোগ বিজেপিতে

মন্ত্রীর খাসতালুকেই তৃণমূল কংগ্রেসে ভাঙন। জাতীয় কংগ্রেসে যোগ দিলেন দুই তৃণমূল নেতা। এদিকে ২৪ জন তৃণমূল ছাত্র পরিষদের কর্মী এদিন যোগ দিলেন বিজেপিতে।

 

Bengal Live ডেস্কঃ খোদ মন্ত্রীর ঘাঁটিতেই ভাঙন ধরল তৃণমূল কংগ্রেসে। পরিবারতন্ত্র, দুর্নীতি ও তোলাবাজির বিরুদ্ধে সরব হয়ে তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে জাতীয় কংগ্রেসে যোগদান করলেন উত্তর দিনাজপুর জেলার দুই শীর্ষ নেতা। এমনই ঘটনা ঘটল খোদ শ্রম দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী গোলাম রব্বানির বিধানসভা কেন্দ্র গোয়ালপোখরে। মন্ত্রী গোলাম রব্বানি ও তাঁর ভাইয়ের পরিবারতান্ত্রিক রাজনীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়েই তৃণমূল কংগ্রেস দল ছাড়লেন জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদন নূর এহেসান এবং আরসাদুল কাদরী। মঙ্গলবার গোয়ালপোখর ব্লকের বড়বিল্লা অঞ্চলে জেলা কংগ্রেস নেতা এম এম নাসিমের হাত থেকে ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের পতাকা তুলে নেন তৃণমূল কংগ্রেসের এই দুই শীর্ষ জেলা নেতা।

দলত্যাগী তৃণমূল নেতা নূর এহেসান জানিয়েছেন, সাধারণ মানুষের হয়ে এই গোয়ালপোখর ব্লকে কোনও কাজ করা যাচ্ছিল না। বাংলা আবাসের ঘর থেকে শুরু করে যেকোনও ভাতা পেতে হলে আগে কাটমানি দিতে হয় সাধারণ মানুষকে। এই দুর্নীতিগুলোর বিষয়ে প্রচ্ছন্ন মদত রয়েছে এলাকার বিদায়ী বিধায়ক তথা রাজ্যের শ্রম দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী গোলাম রব্বানি ও তাঁর ভাইয়ের। এই গোয়ালপোখর ব্লকে পরিবারতন্ত্র চলছে। এরই প্রতিবাদ জানিয়ে সাধারণ মানুষের হয়ে কাজ করার লক্ষ্যে আমরা জাতীয় কংগ্রেসে যোগদান করেছি।

এদিকে উত্তর দিনাজপুর জেলার হেমতাবাদে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রাক্তন ব্লক সভাপতি সহ ২৩ জন কর্মী যোগ দিলেন বিজেপিতে। বিগত কিছুদিন আগেই দলীয় নেতৃত্বের উপর ক্ষোভ প্রকাশ করে পদত্যাগ করেছিলেন ছাত্র নেতা সুশোভন গুপ্ত। এরপর থেকেই জল্পনা চলছিল। বিজেপির জেলা সভাপতি বিশ্বজিৎ লাহিড়ী বলেন, সুশোভন সহ এলাকার তৃণমূল ছাত্রযুব নেতারা দীর্ঘদিন ধরে তৃণমূল কংগ্রেসের একনিষ্ঠ সৈনিক হিসেবে কাজ করে আসলেও তাঁরা সামনের সারিতে জায়গা পাননি। তাই এরা মোদীজীর সবকা সাথ সবকা বিকাশ এই কর্মযজ্ঞে শামিল হতে বিজেপি দলে যোগদান করলেন।

Related News

Leave a Reply

Back to top button