রাজ্য

বেহাল রাস্তা মেরামতির দাবিতে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ গ্রামবাসীদের

একাধিক বার মিলেছে প্রতিশ্রুতি। কিন্তু শুরু হয়নি পাকা রাস্তা তৈরির কাজ। বাধ্য হয়ে আন্দোলনে নামলেন গ্রামবাসীরা।

 

Bengal Live কালিয়াগঞ্জঃ রাস্তার বেহাল দশা। বারংবার প্রতিশ্রুতি পেয়েও শুরু হয়নি মেরামতির কাজ। প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের কাজে বিরক্ত হয়ে শেষে পথ অবরোধে সামিল স্থানীয় বাসিন্দারা। বুধবার ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য কালিয়াগঞ্জ বিধানসভার হেমবাজারে৷ টায়ার জ্বালিয়ে রাস্তা মেরামতির দাবিতে সরব গ্রামবাসীরা। এবার আর আশ্বাস নয়, মেরামতির কাজ শুরু না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে বলে হুঁশিয়ারি গ্রামবাসীদের।

জানা গেছে কালিয়াগঞ্জ থানার হেমবাজার থেকে চোপড়া জোতজামাল অবৈতনিক প্রাথমিক বিদ্যালয় ভায়া পূর্বরামপুর ধনিপুকুর এসএসকে পর্যন্ত তিন কিলোমিটার রাস্তা পাঁঁচ বছর ধরে বেহাল অবস্থায় পড়ে রয়েছে। কালিয়াগঞ্জ বিধানসভা উপনির্বাচনের আগে শাসক দলের পক্ষ থেকে পাকা রাস্তা নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল বলে আন্দোলনকারীদের দাবি৷ গ্রামবাসীদের অভিযোগ, নির্বাচনে জয় লাভের পরেও সেই উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়নি। এরপর দুর্গাপূজার আগে বেহাল রাস্তা মেরামতির দাবিতে গ্রামবাসীরা রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখালে ফের একবার রাস্তা তৈরীর আশ্বাস দেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা। কয়েকমাস কেটে যাবার পরও সেই তিন কিলোমিটার রাস্তা তৈরী না হওয়ায় বুধবার সকাল থেকে হেমবাজার মোড়ে রাধিকাপুর কালিয়াগঞ্জ রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেছেন গ্রাম বাসীরা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছান কালিয়াগঞ্জ থানার পুলিশ এবং কালিয়াগঞ্জের বিডিও। পুলিশ এবং ব্লক প্রশাসনের তরফ থেকে রাস্তা তৈরীর আশ্বাস দেওয়া হলেও তাতে আন্দোলনকারীদের শান্ত করা যায়নি।

আন্দোলনকারীদের মধ্যে অন্যতম মিঠুন চৌধুরী বলেন, একাধিকবার প্রতিশ্রুতি আমাদের দেওয়া হয়েছে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি থেকে শুরু করে প্রশাসন প্রত্যেকেই আশ্বাস দিয়েছিল রাস্তা তৈরি করার। কিন্তু এখনও কোনও উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। বিধায়কও এই এলাকায় এসে রাস্তা মেরামতির কথা বলে গিয়েছেন। কিন্তু কবে হবে? এই প্রশ্নের উত্তর কেউ দিতে পারেনি। তাই এদিন বাধ্য হয়ে আমরা আন্দোলন শুরু করেছি। জেলা শাসক যতক্ষণ আমাদের দাবি না মানছেন, যতক্ষণ রাস্তা মেরামতির কাজ শুরু না হচ্ছে ততক্ষণ আন্দোলন চলবে হলে জানিয়েছেন মিঠুন চৌধুরী।

Related News

Leave a Reply

Back to top button