রায়গঞ্জ

বিনা প্রশিক্ষণেই সাপ ধরার চেষ্টা, দুঃসাহসের মাসুল গুনছেন রায়গঞ্জের যুবক

বিষাক্ত গোখরো সাপ হাত দিয়ে ধরে বোতলবন্দী করার চেষ্টা করলে সাপটি যুবকের হাতে পর পর তিন বার ছোবল বসায়।

 

Bengal Live রায়গঞ্জঃ  ফের বিনা প্রশিক্ষণেই সাপ ধরার চেষ্টা, দুঃসাহসের মাসুল গুনছেন রায়গঞ্জের আরও এক যুবক।বৃহস্পতিবার রাতে কোনোরকম প্রথাগত দক্ষতা ছাড়াই বিষধর সাপ বোতলবন্দী করতে গেলে সাপটি যুবকের হাতে ছোবল বসায় একাধিকবার। ভালো মাত্রায় বিষ শরীরে প্রবেশ করায় রায়গঞ্জ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে আশঙ্কাজনক অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন ওই যুবক।

জানা গেছে, চিকিৎসাধীন ওই যুবকের নাম বিশ্বজিৎ ঘোষ, তিনি পেশায় টোটো চালক। রায়গঞ্জের শিলিগুড়ি মোড় সংলগ্ন এলাকায় বৃহস্পতিবার গভীর রাতে প্রায় ৪ ফুট লম্বা একটি বিষাক্ত গোখরো সাপ হাত দিয়ে ধরার চেষ্টা করেন তিনি। সাপ ধরার এমন দুঃসাহসিক দৃশ্য দেখে তা মোবাইলে রেকর্ড করে রাখছিলেন সেখানে উপস্থিত অন্যান্যরা। কিন্তু সাপটির মাথা ধরে তাকে বোতলবন্দী করতে গেলেই বাধে বিপত্তি, সাপটি ছোবল বসায় তাঁর হাতে। প্রত্যক্ষদর্শীদের মোবাইলে রেকর্ড হয় সাপের দংশনের দৃশ্যও। সেখানে স্পষ্টতই যুবকের হাতে পর পর তিন বার ছোবল বসাতে দেখা যাচ্ছে সাপটিকে।

প্রশিক্ষণ ছাড়া বিষধর সাপ ধরতে গিয়ে বিপাকে রায়গঞ্জের যুবক

খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় রায়গঞ্জের একটি পশুপ্রেমী সংগঠনের কর্মীরা। তাঁরা গিয়ে সাপটিকে উদ্ধার করে এবং আহত ওই যুবককে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠায়। রায়গঞ্জ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের সহকারি সুপার অভিক মাইতি জানিয়েছেন, যুবকটির অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় আপাতত তাঁকে সিসিইউতে স্থানান্তরিত করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগেই রায়গঞ্জের আরেক যুবক বিনা প্রশিক্ষণে দিদির বাড়ি থেকে সাপ উদ্ধার করতে গেলে বিষাক্ত কালাচ সাপের কামড় খায়। তাঁরও চিকিৎসা চলে রায়গঞ্জ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে। বারংবার এরকম বিনা প্রশিক্ষণে সাপ ধরার প্রবণতায় যথেষ্ট চিন্তায় পড়েছে পশুপ্রেমী সংগঠনগুলি। এতে যেমন সাপের ক্ষতি হতে পারে, তেমনই কোনো ব্যক্তির মৃত্যু পর্যন্ত ঘটতে পারে। তাই চিকিৎসক ও পশুপ্রেমী সংগঠনগুলির তরফে বারবার জনসাধারণকে কোনও অবস্থাতেই প্রশিক্ষণ ছাড়া এভাবে সাপ না ধরার বার্তা দেওয়া হচ্ছে।

Related News

Leave a Reply

Back to top button