বিনোদন

শরীরে বাসা বেঁধেছে মারণ রোগ, ক্যানসারে আক্রান্ত মহেশ মাঞ্জরেকর

ইউরিনারি ব্লাডার ক্যানসারে আক্রান্ত মহেশ মাঞ্জরেকর। দিন দশেক আগে মুম্বইয়ের চারনি রোডে অবস্থিত এক বেসরকারি হাসপাতালে অস্ত্রোপচার হয়েছে তাঁর।

Bengal Live ডেস্কঃ  ফের মারণ রোগের থাবা বলিউডে। ২০২০ সালে ক্যান্সারের কারণে ঋষি কাপুর, ইরফান খানের মতো দুজন জনপ্রিয় অভিনেতাকে হারিয়েছে বলিউড।এরপর কর্কট রোগের স্বীকার হলেন অভিনেতা-পরিচালক মহেশ মাঞ্জরেকর। জানা গেছে , তিনি ইউরিনারি ব্লাডার ক্যানসারে আক্রান্ত। মাসখানেক আগে থেকেই এই মারণ ব্যাধি বাসা বেঁধেছে তাঁর শরীরে । অসুস্থতার কথা জানা যেতেই চিকিৎসা শুরু হয় অভিনেতার। দিন দশেক আগে মুম্বইয়ের চারনি রোডে অবস্থিত এক বেসরকারি হাসপাতালে অস্ত্রোপচার হয়েছে তাঁর।

মুম্বইয়ের এক সংবাদমাধ্য়েমর রিপোর্টে বলা হয়েছে , মহেশের অস্ত্রোপচার সফল হয়েছে। তিনি আপাতত সুস্থ আছেন। বাড়ি ফিরে চিকিৎসকের পরমর্শ মতো চলছেন পরিচালক।

ভিডিও গেমের নেশায় মত্ত, ট্রেনে কাটা পড়ে মৃত্যু হল চার যুবকের, শোকের ছায়া উত্তর দিনাজপুরে

মারাঠি ছবি ‘জীবন সখা’ দিয়ে ১৯৯২ সালে অভিনয় জগতে পা রাখেন মহেশ মাঞ্জরেকর। ‘মুসাফির’, ‘জিন্দা’ , ‘ ‘দশ কাহানিয়া’, ‘প্ল্যান’ সহ একাধিক ছবিতে তিনি অভিনয় করেছেন। অসাধারণ অভিনয় দক্ষতায় বারবার জিতে নিয়েছেন দর্শকদের মন। তবে শুধু অভিনেতা হিসেবে খ্যাত নন, পরিচালক হিসেবে যথেষ্ট সুনাম অর্জন করেছেন মহেশ। তাঁর পরিচালনায় হল ‘বাস্তব’ , ‘নিদান’, ‘ আই’, ‘ বিরুদ্ধ’ প্রভৃতি ছবিগুলি উল্লেখযোগ্য।

পরিচালক মহেশ মাঞ্জরেকরের পরবর্তী ছবি ‘অন্তিম: দ্য ফাইনাল ট্রুথ’ রয়েছে মুক্তির অপেক্ষায়। এই ছবিতে একজন শিখ পুলিশের ভূমিকায় দেখা যাবে সলমান খানকে। ছবির শ্যুটিং ইতিমধ্যেই শেষ হয়ে গেলেও, তার মুক্তি পিছিয়ে গিয়েছে অনির্দিষ্টকালের জন্য।

জলমগ্ন মালদার বিস্তীর্ণ এলাকা, বন্যা নয়, প্লাবিত, বলছেন মন্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন

মহেশ মাঞ্জরেকর এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছিলেন, ছবির পোস্টার রিলিজের কথা ছিল মার্চের শেষে এবং টিজার মুক্তি পেতো মে মাস নাগাদ। কিন্তু বর্তমানে মহেশ এবং ছবির প্রযোজকরা অক্টোবরে আদতেও দেশের সমস্ত জায়গায় পেক্ষাগৃহ খুলবে কি না তা নিয়ে অনিশ্চয়তায় ভুগছেন। ফলে ছবির মুক্তি পিছিয়ে দেওয়ার ব্যাপারেই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন পরিচালক – প্রযোজকেরা। তার উপর এখন আবার যুক্ত হয়েছে মহেশের অসুস্থতা, তাই কার্যত আরো অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে ছবির মুক্তি। তবে খুব তাড়াতাড়ি সোনালী বেন্দ্রে, অনুরাগ বসু কিংবা সঞ্জয় দত্তের মত মহেশও কর্কট রোগকে হারিয়ে আবারও বলিউডে ফিরবেন এমনই আশাবাদী দর্শক থেকে শুরু করে ইন্ডাস্ট্রির অন্যান্য কলাকুশলীরা।

Leave a Reply

Back to top button