রাজ্য

শুভেন্দুকে মেদিনীপুরের মাটিতেই হাফ লাখে হারানো হবে, কাঁথির সভায় চ্যালেঞ্জ অভিষেকের

ভোট যত এগিয়ে আসছে, রাজনীতির পারদ ততই চড়ছে। শনিবার অধিকারী গড়ে গিয়ে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ঝাঁঝালো আক্রমণ করলেন শুভেন্দু অধিকারী ও তাঁর পরিবারকে। সেই সঙ্গে ৫০ হাজার ভোটে হারানোর কড়া চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিলেন অধিকারী গড়ের “নায়ক” শুভেন্দুকে।

 

Bengal Live নিউজ ডেস্কঃ কাঁথির অধিকারী গড়ে গিয়ে খোদ শুভেন্দু অধিকারীকেই কড়া চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিলেন তৃণমূলের যুবরাজ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃণমূলকে “প্রাইভেট কোম্পানি” বলে কটাক্ষ করার জবাব যেমন দিলেন অধিকারী পরিবারকে “মীরজাফর কোম্পানি” আখ্যা দিয়ে, তেমনই কাঁথির “শান্তিকুঞ্জ”কে থরথর করে কাঁপিয়ে তোলার হুঙ্কার ছাড়লেন ভাইপো অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

শুভেন্দু অধিকারীর বাড়ি শান্তিকুঞ্জ থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরেই শনিবার দুপুরে জনসভা করেন তৃণমূলের রাজ্য সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। জনসভায় কর্মীসমর্থকদের সমাগম দেখে অভিষেক বলেন, “এই মাঠে যা লোক হয়েছে, তাঁরা ভোট দিলেই তো মীরজাফর কোম্পানির জামানত জব্দ হবে। মেদিনীপুরের মানুষ বিশ্বাসঘাতকতা সহ্য করবে না। জেলার মানুষের বিশ্বাসভঙ্গ করেছেন যাঁরা, তাঁদের মানুষ ক্ষমা করবেন না। বিশ্বাসঘাতকদের ঝেঁটিয়ে বিদায় করবেন কথা দিন।”

উপস্থিত তৃণমূলী জনতার উদ্দেশে তিনি বলেন, “জোরে আওয়াজ তুলুন, শান্তিকু্ঞ্জ যেন থরথর করে কাঁপে। যাঁর নেতৃত্বে বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙা হয়েছিল, তাঁর পদলেহন করছে। আর যাই হোক মেদিনীপুর বশ্যতা স্বীকার করতে পারে না। যাঁরা এই মাটিকে কালিমালিপ্ত করেছেন, তাঁদের মেদিনীপুর থেকে বিতাড়িত করতে হবে।’”

এর আগে পূর্ব মেদিনীপুরের নন্দীগ্রামে সভা করতে এসে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, নন্দীগ্রাম থেকে ভোটে দাঁড়াবেন তিনি। এদিন সেই প্রসঙ্গ টেনে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “এবার পূর্ব মেদিনীপুরের মানুষ সরকার নির্বাচন তো করবেনই, তার সাথে সাথে মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচনও করবেন।” এর পরেই ফের শুভেন্দুকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেন তিনি। ভাইপো হুঙ্কার ছেড়ে বলেন, পূর্ব মেদিনীপুরের মাটিতে যেখানেই উনি দাঁড়াবেন, ৫০ হাজার ভোটে হারানো হবে তাঁকে (শুভেন্দু অধিকারীকে), কথা দিয়ে গেলাম।”

Related News

Leave a Reply

Back to top button